রহস্য রোমাঞ্চ সিনেমা-সাহিত্যকেও ছাপিয়ে যাচ্ছে মহারাষ্ট্রের মহানাটক। শনিবার বিজেপির ঘোড়া কেনাবেচা রুখতে মুম্বইয়ের হোটেল রেনেশাঁয় তোলা হয়েছিল এনসিপি বিধায়কদের। রবিবার রাতে সেই হোটেলেই ধরা পড়ল সাদা পোশাকের মুম্বই পুলিশ। তাঁকে চেপে ধরে এনসিপি দলের নেতারা অভিযোগ করলেন তাদের খবর নিতে গুপ্তচর পাঠিয়েছে বিজেপি। আর তারপরেই বিধায়কদের রেনেশাঁ হোটেল থেকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হল বিমানবন্দরের কাছের এক পাঁচতারা হোটেলে।

এনসিপি বিধায়ক জিতেন্দ্র আওহাদ সরাসরি অভিযোগ করেছেন, সরকারের নির্দেশ না থাকলে পুলিশ এরকমটা করবে না। এর ঠিক আগে কংগ্রেস নেতা অশোক চভন অভিযোগ করেন, বিজেপির পক্ষ থেকে তাঁদের দলের বিধায়কদেরও ভাঙানোর চেষ্টা চলছে। তিনি জানান, বিধায়করা নিজেরাই তাঁকে এই খবর দিয়েছেন।

মহারাষ্ট্রের রাজনৈতিক মহলে কান পাতলে শোনা যাচ্ছে গেরুয়া শিবিরে বিধায়কদের টানতে বিজেপি-র পক্ষ থেকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে চার দলবদলে পারদর্শী নেতাকে। প্রথমজন রাধাকৃষ্ণ ভিখে পাতিল, বিধানসভা নির্বাচনের ঠিক আগ দিয়েই কংগ্রেস শিবির ছেড়ে পদ্মের আশ্রয় নিয়েছিলেন। এছাড়া শিবসেনা থেকে কংগ্রেস ঘুরে এখন বিজেপির রাজ্যসভার বিধায়ক নায়ারণ রানে, এনসিপি থেকে বিজেপি হওয়া গণেশ নাইক ও বাবানরাও পাচপুতে-কে।