ভারতমাতাকে মিথ্যে বলছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ভারতে বন্দি শিবির নিয়ে তাঁর মন্তব্য সর্বৈব মিথ্য়ে। বৃহস্পতিবার অসমের বন্দি শিবির নিয়ে এক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের ভিডিও পোস্ট করে এমনই দাবি করলেন কংগ্রেস নেতা ও সাংসদ রাহুল গান্ধী।  

গত সপ্তাহেই দিল্লির এক সভায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেছিলেন, সারা ভারতে এনআরসি-র বিষয়ে কোনও আলোচনা হয়নি। নাগরিকত্ব যাচাই করার অভিযান এখন পর্যন্ত শুধু অসমেই প্রয়োগ করা হয়েছে। মুসলমানদের বন্দি শিবিরে পাঠানো হবে বলে কংগ্রেস এবং অন্যান্য বিরোধী দল গুজব ছড়াচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। দেশে কোনও বন্দি শিবির নেই বলেও জোর গলায় জানিয়েছিলেন তিনি।

এদিন, কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী অসমের মাটিয়া-র এক বন্দি শিবির নিয়ে তৈরি ভিডিও পোস্ট করেন। অসমের গোয়ালপাড়া জেলায় এই মাটিয়া বন্দি শিবির অবস্থিত। বর্তমানে এই শিবিরের প্রায় দুই-তৃতীয়াংশ নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। ২০১৮ সালের ডিসেম্বরেই এই বন্দি শিবির তৈরির কাজ শুরু হয়েছিল।

সরকারী সূত্রের দাবি এই বন্দি শিবিরের সঙ্গে সরাসরি এনআরসি-র কোন যোগসূত্র নেই। এই শিবিরে আটকরা মূলতঃ ফরেনার্স আইন এবং পাসপোর্ট আইন লঙ্ঘনকারীরা। আইন মেনে বিচার চলার পরই তাদের সেখানে রাখা হয়েছে।

রাহুল গান্ধীর এই টুইটের জবাব দিয়েছেন বিজেপির আইটি সেল-এর প্রধান অমিত মালভিয়া। তিনি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের ২০১১ সালেরর এক বিজ্ঞপ্তি-কে হাতিয়ার করেছেন। ওই বিজ্ঞপ্তি-তে বলা হয়, অসম সরকার গোয়ালপাড়া, কোকরাঝার এবং শিলচরে তিনটি বন্দি শিবির গড়ছে। এই কেন্দ্রগুলিতে ৩৬০ এরও বেশি অবৈধ শরণার্থীকে পাঠানো হয়েছে। সেই সময় অসম রাজ্য ও কেন্দ্র উভয় জায়গাতেই ক্ষমতায় ছিল কংগ্রেস। রাহুল-কে ঠুকে মালভিয়া বলেছেন, বারবার ভারত রাহুলকে প্রত্যাখ্যান করেছে বলেই সম্ভবত তিনি ঘৃণা ও ভয় দেখানোর রাজনীতি করে ভারতকে ধ্বংস করতে চাইছেন।