আমরাও চাষির মেয়ে। আর সেই কারণেই দিল্লি সীমানায় যেসব কৃষকরা বিক্ষোভ দেখাচ্ছে তাদের পাশে দাঁড়াব। বিক্ষোভকারী কৃষকদের হয়ে কথা বলব। সরকারকে আমাদের কথা শুনতে হবে। সকালে রীতিমত হুংকার শোনা গিয়েছিল শাহিনবাদের দাদির গলায়। গোটা দেশের কাছে তাঁর পরিচয় শাহিনবাগের দাদি হিসেবে। চলতি বছর নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে যখন উত্তাল হয়েছিল দিল্লি, অবস্থান বিক্ষোভ দেখিয়ে সংবাদ শিরোনামে উঠে এসেছিল শাহিনবাদ। তখন সেই আন্দোলনের মুখ হয়ে উঠেছিলেন আশীতির এই বৃদ্ধ। তাঁর নাম বিলকিস বানো। মঙ্গলবার তিনি কৃষকদের পাশে দাঁড়িতে গিয়েছিলেন। কিন্তু দিল্লি পুলিশ দিল্লি হরিয়ানা সীমানায় সিংহু এলাকায় ৮২ বছরের এই মহিলাকে আটক করে। 

গত সপ্তাহ থেকেই কৃষক বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে উঠেছে দিল্লি সংলগ্ন এলাকা। নতুন কৃষি আইনের বিরুদ্ধেই রাস্তায় নেমেছেন পঞ্জাব ও হরিয়ানার কৃষকরা। সরকারকে বিনা শর্তে তাঁদের সঙ্গে আলোচনায় বসতে হবে। এই দাবি জানিয়েই প্রতিবাদে সরব হয়েছেন কয়েক হাজার কৃষক। কৃষকদের অবস্থান আর ট্রাক্টর ও ট্রাক দাঁড়িয়ে থাকায় প্রায় অবরুদ্ধ জাতীয় রাজধানী। তবে মঙ্গলবারই কৃষি মন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমর কৃষকদের বেশ কয়েকটি সংগঠনের সঙ্গে বৈঠকে বসেছেন। কৃষি আইনের পাশাপাশি সমস্যা সমাধান নিয়েও আলোচনা চলতে পারে বলেই সূত্রের খবর। পাল্টা কৃষকরাও জানিয়ে দিয়েছে তাঁরা ৬ মাসের রদস নিয়ে আন্দোলনে নেমেছে। 

চিনা ড্রোনই বড় ভরসা পাক জঙ্গিদের, শীতকালে ঘুম ছুটিয়ে দিয়েছে ভারতের নিরাপত্তাবাহিনীর ...

শীতের শুরুতেই লাদাখে ধাক্কা খেল ড্রাগনরা, লাল ফৌজদের থেকে এগিয়ে ভারতীয় জওয়ানরা ..

অন্যদিকে কৃষক বিদ্রোহে শাহিনবাগের দাদির মত অনেকেই সমর্থনা জানাচ্ছেন। যা আরও অস্বস্তি বাড়িয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারের। তবে গতকালও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী তাঁর নির্বাচনী কেন্দ্র বারানসী থেকে জানিয়েছেন, কেন্দ্রের নতুন কৃষি আইন কৃষকদের সহযোগিতা করবে। তাঁদের উন্নয়নে সাহায্য করবে। পাশাপাশি তিনি বলেছিলেন কৃষকদের প্ররোচিত করা হচ্ছে।