এই বছরের শেষেই বিহারে বিধানসভা ভোট। ক্ষমতা ধরে রাখতে পারবেন নীতিশ কুমার নাকি পাল্টে যাবে সরকার, তা নিয়ে বিহারের রাজনীতিতে ক্রমেই চড়ছে উত্তেজনার পারদ। এর মধ্যে নীতিশের দল জনতা জেডিইউ-এর এক নেতার মেয়ে ঘটিয়ে বসলেন এক কাণ্ড। আগামী বিধানসভা নির্বাচনে নিজেকে মুখ্যমন্ত্রী প্রার্থী হিসাবে ঘোষণা করলেন এই কন্যা।

আরও পড়ুন: নজির স্থাপন করলেন শতায়ু বৃদ্ধ, করোনাকে হারিয়ে বাড়ি ফিরলনে সুস্থ হয়ে

জনতা দল ইউনাইটেডের নেতা বিনোদ চৌধুরীর মেয়ে পুষ্পাম প্রিয়া চোধুরি। ২০২০ সালে বিহারে বিধানসভা নির্বাচনে তিনি মুখ্যমন্ত্রীর আসনের জন্য লড়বেন বলে ঘোষণা করেছেন পুষ্পাম। সোমবার বিহারের রাজধানী পাটনায় দেখা গেল পুষ্পাম প্রিয়ার ছবি দিয়ে পোস্টার। সদ্য নিজের দল তৈরি করেছেন পুষ্পাম, নাম রেখেছেন প্লুরালস। পোস্টারে লেখা রয়েছে, "ভালবাসুন বিহারকে,ঘৃণা করুণ রাজনীতিকে, যোগ দিন সবচেয়ে প্রগতিশীল দলে।"

 

 

পোস্টারে আরও লেখা রয়েছে, " প্লুরালস এসে গেছে। বিহারের আরও ভাল কিছু প্রাপ্য ও আরও ভাল করা সম্ভব।" প্রিয়ার এহেন আচরণে বেশ অস্বস্তিতে নিতীশের দল। তবে পুষ্পামকে জনতা দল ইউনাইটেড সমর্থন করবে না স্পষ্ট করে দিয়েছেন তাঁর বাবা তথা জেডিইউ নেতা বিনোদ চৌধুরী। 

আরও পড়ুন: বৃন্দাবনের বাঁকে বিহারী মেতেছে হোলির উৎসবে, দেখুন শ্রীকৃষ্ণের লীলাক্ষেত্রের রঙ খেলা

মেয়ে নতুন দল গড়লেও তিনি জেডিইউ-তেই রয়েছেন বলে জিনেয়েছন বিনোদ চৌধুরী। তাঁর বক্তব্য, "পুষ্পাম প্রাপ্তবয়স্ত এবং শিক্ষিত, এটা তাঁর ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। শীর্ষ নেতাকে চ্যালেঞ্জ জানানো পুষ্পামের এমন কোনও কাজকে দল সমর্থন করে না।"

 

পুষ্পামের বাড়ি দ্বারভাঙায় হলেও এখন তিনি লন্ডনের বাসিন্দা। গত রবিবারই নিজেকে বিহারের বিধানসভা নির্বাচনের জন্য মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী হিসাবে ঘোষণা করেছেন এই তরুণী। এনিয়ে একাধিক হিন্দি এবং ইংরেজি সংবাদপত্রে বিজ্ঞাপনও দিয়েছেন তিনি। বিজ্ঞাপনে প্লুরালস দলের প্রেসিডেন্ট হিসাবে রয়েছে তাঁর নাম। 

 

নিজের ওয়েব সাইটেও মানুষের কাছে আবেদন জানিয়েছেন পুষ্পাম প্রিয়া চৌধুরি, লিখেছেন "সিস্টেমকে চ্যালেঞ্জ জানান এবং নোংরা রাজনীতি প্রত্যাখ্যান করুন।"  সদস্য হওয়ার জন্য আবেদন করার পাশাপাশি ওয়েবসাইটটিতে দল চালানোর জন্য অনুদান দেওয়ার কথাও বলা হয়েছে।