কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদী সরকারের প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন মহারাষ্ট্রের নবনির্মান সেনার প্রধান রাজ ঠাকরে। আর তার পরেই বাংলাদেশিদের ভারত ছাড়ার হুঁশিয়ারি দিয়ে পোস্টার পড়ল মহারাষ্ট্রের রায়গড় জেলার পানভেলে। সেই পোস্টারের একদিকে রয়েছে এমএনএস সুপ্রিমো রাজ ঠাকরের ছবি এবং অন্যদিকে রয়েছে সদ্য রাজনীতিতে যোগ দেওয়া তাঁর ছেলে অমিত ঠাকরের ছবি। পোস্টারে লেখা রয়েছে, বাংলাদেশিদের অবিলম্বে ভারত ছাড়তে হবে, নইলে এমএনএসের কায়দায় তাদের তাড়ানো হবে। 

আরও পড়ুন: রাজ্যপালকে নিয়ে নরম হল নবান্ন, মাঘমেলায় যোগ দিতে হেলিকপ্টারেই শান্তিনিকেতনে ধনখড়

গত ২৩ জানুয়ারি বাল ঠাকরের জন্মজয়ন্তীতে দলের জন্য গেরুয়া রঙ ও শিবাজির রাজ মোহরের ছবি দেওয়া নতুন দলীয় পতাকার উদ্বোধন করেন রাজ ঠাকরে। একসঙ্গে বিজেপিকে সমর্থনের কথাও ঘোষণা করেন। অবৈধ অনুপ্রবেশকারীদের আশ্রয় দেওয়ার যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে সিএএ, এনআরসি-র পক্ষে সওয়াল করেন রাজ। বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের অবৈধ অনুপ্রবেশকারীদের দেশ থেকে বিতাড়িত করতে  ৯ ফেব্রুয়ারি একটি প্রতিবাদ মিছিলের ডাকও দিয়েছেন রাজ ঠাকরে। 

আরও পড়ুন: নাগরিকত্ব আইন স্বপ্ন দেখাচ্ছে ওঁদের, ওয়াঘা পেরিয়ে ভারতীয় হওয়ায় ইচ্ছা ২০০ জন পাক হিন্দুর

 

উত্তরাধিকার নিয়ে মোনমালিন্যের জেরে ২০০৬ সালে শিবসেনা ছেড়ে ছিলেন রাজ ঠাকরে। যদিও বাল ঠাকরের বরাবরই স্নেহভাজন ছিলেন রাজ। সেইবছরই মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনা তৈরি করেন তিনি। যদিও মহারাষ্ট্রে এখনও তেমন ভাবে মাটি শক্ত হয়নি এমএনএসের। এখনও মারাঠাদের সিংহভাগের সমর্থন রয়েছে বাল ঠাকরের ছেলে উদ্ধব ঠাকরের নেতৃত্বাধীন শিবসেনার দিকে। চলতি বিধানসভা নির্বাচনের পর বিজেপির সঙ্গে শিবসেনার দীর্ঘদিনের জোট ভেঙেছে মুখ্যমন্ত্রী বিতর্কে। এনডিএ ছেড়ে বেরিয়ে এসেছে শিবসেনা। উল্টে এনসিপি ও কংগ্রেসের হাত ধরে মহারাষ্ট্রে সরকার গঠন করেছেন উদ্ধব ঠাকরে। হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রীও। আর এই সুযোগেই বিজেপির হাত ধরেছেন রাজ ঠাকরে। তাই মোদী সরকারের প্রতি নিজের আনুগত্য প্রকাশ করতেই  বাংলাদেশি খেদানোর ডাক দিয়েছেন এমএনএস প্রধান, এমনটাই মনে করছে বিশেষজ্ঞ রাজনৈতিক মহল।