৬ ফেব্রুয়ারি বিশ্বভারতীতে যাচ্ছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। সেখানে মাঘমেলায় যোগ দেবেন তিনি। আর রাজ্যপালের এই সফরের জন্য এবার হেলিকপ্টার দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার। এর আগে জেলা সপরের জন্য হেলিকপ্টার চেয়েও পাননি খনখড়। এনিয়ে প্রকাশ্যে ক্ষোভ উগড়েছিলেন রাজ্যপাল। তবে এবার সেই হেলিকপ্টার বিতর্কে ইতি পড়ল।

নবান্ন সূত্রে খবর, নিয়ম মেনেই  এবার রাজভবনের পক্ষ থেকে হেলিকপ্টার চাওয়া হয়েছিল রাজ্যের কাছে। তার তাতেই সবুজ সঙ্কেত দিয়েছে মমতার সরকার।

আরও পড়ুন: বরফের মাঝে একাই স্লেজ করছে কুকুর, সারমেয়র বুদ্ধিতে মাত নেট দুনিয়া, ভাইরাল হল ভিডিও

গত বছর নভেম্বর থেকেই হেলিকপ্টার নিয়ে রাজভবন-নবান্ন মন কষাকষি চলছে। নদিয়ার শান্তিপুরে এক অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যাওয়ার জন্য ধনখড় হেলিকপ্টার চেয়েছিলেন। কিন্তু রাজভবন থেকে পাঠানো সেই চিঠির কোনও উত্তর দেয়নি নবান্ন। পরে ফরাক্কা ও ডোমকল সফরের জন্যও হেলিকপ্টার চেয়ে পাননি রাজ্যপাল। উল্টে  প্রকাশ্যে রাজ্যপালের সমালোচনা শুরু করে তৃণমূল নেতৃত্ব। 

আরও পড়ুন: ১৫ লক্ষ দেননি মোদী-শাহ জুটি, প্রতারণার অভিযোগে মামলা শুরু রাঁচির আদালতে

চলতি বছর বিধানসভায় বাজেট অধিবেশন শুরু হচ্ছে ৭ ফেব্রুয়ারি। ১০ ফেব্রুয়ারি বাজেট পেশ করবেন অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র। তার আগে অবশষ্য প্রথা মেনে রাজ্যপালের বাজেট বক্তৃতা রয়েছে। এই  বাজেট অধিবেশন নিয়ে রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করেছেন রাজ্যের পরিষদীয় মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। রাজভবনে যান অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্রও। বাজেট অধিবেশনে আলোচনার জন্যই দুই মন্ত্রীর এই রাজভবন যাত্রা বলে সরকারের তরফেও জানানো হয়। আর অধিবেশন শুরুর আগের দিন শান্তিনেকতন যাচ্ছেন রাজ্যপাল। সেই কারণেই এবার রাজভবনের হেলিকপ্টার আর্জি নবান্ন মঞ্জুর করল বলে মনে করছেন অনেক রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞই।