গত শনিবার মেডিক্যাল বুলেটিনে প্রণব মুখোপাধ্যায়ের স্বাস্থ্যের  সামান্য উন্নতির কথা জানিয়েছিলেন সেনা হাসপাতালের চিকিৎসকরা। সে দিন হাসপাতাল তরফে জানানো হয়েছিল, কিডনি আগের তুলনায় ভাল কাজ করছে। কিন্তু ৪৮ ঘণ্টা যেতে না যেতেই পাল্টে গেল চিত্রটা। দেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতির শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি হয়েছে বলে মেডিক্যাল বুলেটিনে জানানো হল। 

দিল্লির সেনা হাসপাতালের চিকিৎসকরা বলছেন, রবিবারের চেয়ে প্রণব মুখোপাধ্যায়ের পরিস্থিতি কিছুটা খারাপ হয়েছে। এখনও গভীর কোমাতেই আচ্ছন্ন তিনি। সোমবার সকালে দিল্লির কনটেনমেন্টের সেনা হাসপাতালের তরফে প্রকাশিত বুলেটিনে বলা হয়েছে, ‘‘রবিবারের তুলনায় প্রণব মুখোপাধ্যায়ের শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটেছে। ফুসফুস সংক্রমণের জেরে তাঁর সেপটিক শক দেখা দিয়েছে। চিকিৎসকের দল এবং বিশেষজ্ঞরা চেষ্টা চালাচ্ছেন। ভেন্টিলেটর সাপোর্টে তিনি এখনও কোমাতেই রয়েছেন।’’

আরও পড়ুন: দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৩৬ লক্ষ ছাড়াল, দিল্লির এইমস থেকে অবশেষে ছুটি পেলেন অমিত শাহ

প্রণব ১৩তম রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায় এখনও গভীর কোমায় আচ্ছন্ন আছেন এবং ভেন্টিলেটর সাপোর্টে রয়েছেন। সেনা হাসপাতালে  বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের একটি দল সর্বদা তাঁর পর্যবেক্ষণ করছেন। রবিবার হাসপাতালের তরফে জানানো হয়েছিল, প্রাক্তন রাষ্ট্রপতির রক্তচাপ, পালস রেট ও হার্ট রেটের মতো রক্ত সঞ্চালন স্থিতিশীল আছে। কিন্তু সোমবার সকালে তাঁর পরিস্থিতির আবার অবনতি হয়েছে। পাশাপাশি ফুসফুসে সংক্রমণের জন্যও চিকিৎসা চলছে বলে হাসপাতালের তরফে জানানো হয়।

আরও পড়ুন: কোভিডের প্রাণঘাতী রূপ স্তিমিত, দীপাবলির মধ্যেই আসবে নিয়ন্ত্রণে, আশার আলো দেখাচ্ছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

গত ২০ দিন ধরে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন দেশের প্রথম বাঙালি রাষ্ট্রপতি।  গত ৯ অগস্ট বাড়ির শৌচাগারে পড়ে গিয়ে মাথায় আঘাত পান তিনি। তার পর স্নায়ুঘটিত সমস্যা দেখা দেওয়ায়, গত ১০ অগস্ট তাঁকে দিল্লি ক্যান্টনমেন্টের সেনা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরীক্ষায় তাঁর কোভিড-১৯ সংক্রমণও ধরা পড়ে। মস্তিষ্কের একটা ক্লট সরাতে সেদিনই তাঁর ব্রেন সার্জারি করা হয়। তারপর থেকেই কোমাতে রয়েছেন দেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি। ফুসফুসের সংক্রমণ ছাড়াও কিডনির সমস্যা রয়েছে প্রণব মুখোপাধ্যায়ের।