আচমকাই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী শুক্রবার লাদাখ সফরে দিয়েছিলেন। লাদাখে সীমান্ত রক্ষায়ে কর্তব্যরত ভারতীয় সেনা জওয়ানদের সঙ্গে দীর্ঘ সময় কাটান। সূত্রের খবর সেনার মনোবল বাড়াতেই এই সফর। লাদাখ সফররত প্রধানমন্ত্রী লে-র সেনা হাসপাতালে গিয়েও দেখা করেন গালওয়ানে আহত ভারতীয় জওয়ানদের সঙ্গে। কিন্তু এরই মধ্যে কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী দিল্লিতে বসেই নিশানা করেন প্রধানমন্ত্রীকে। 


কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও পোস্ট করেন। সেই ভিডিওতে রয়েছে লাদাখের বেশ কয়েকজন বাসিন্দা। যাঁরা দাবি করেছেন লাদাখে চিনা সেনা অনুপ্রবেশ করেছেন। অনেকে আবার কিছুটা এগিয়ে দাবি করেছেন প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ সীমা রেখে পেরিয়ে চিনা সেনা ভারতীয় ভূখণ্ডের প্রায় তিন থেকে চার কিলোমিটার ভিতরে প্রবেশ করেছেন। আর সেই ভিডিও পোস্ট করে রাহুল গান্ধী লিখিছেন লাদাখের বাসিন্দারা বলথেন চিনারা আমাদের জমি নিয়ে নিয়েছে। অথচ প্রধানমন্ত্রী বলছেন কেউ আমাদের জমি অধিগ্রহণ করেনি। 


প্রথম থেকেই রাহুল গান্ধী লাদাখে চিনা অনুপ্রবেশ হয়েছে বলে অভিযোগ তুলে আসছিলেন। যদিও সর্বদলীয় বৈঠক ও মন কি বাত অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন কেউ আমাদের জমি অধিগ্রহণ করেনি। কেউ আমাদের ভূখণ্ডে প্রবেশ করেনি। কিন্তু তারপরেই বিষয়টি নিয়ে রণভঙ্গ দেননি রাহুল গান্ধী। প্রধানমন্ত্রীর লাদাখ সফরের দিনেও সেই প্রশ্ন উত্থাপন করেবন। এর আগেও রাহুল গান্ধী একাধিকবার লাদাখ ইস্যুতে প্রশ্ন তুলেছেন। কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী সাংবাদিক সম্মেলনে তাঁকে ধমকও দিয়েছেন সেই জন্য। রবিশঙ্কর প্রসাদ বলেছিলেন চিনের মত স্পর্ষকাতর ইস্যু নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় আলোচনা করা ঠিক নয়। অমিত শাহও বলেছেন সংসদে আলোচনা হবে চিন প্রশ্ন। তারপরেই রাহুল গান্ধী বিঁধলেন প্রধানমন্ত্রীকে। 

৫৯ অ্যাপ ব্যানের পর প্রধানমন্ত্রীর লাদাখের সেনা ছাউনিতে সফর , আর সহ্য করতে পারছে না চিন .

কিম বলছেন করোনা মোকাবিলায় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে উত্তর কোরিয়া, জেনে নিন আসল ছবি কেমন ...