শুক্রবার প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং কৈলাশ মানসরোবর যাওয়ার একটি নতুন রাস্তা উদ্বোধন করেন। উত্তরাখণ্ডের ধরাচুলা থেকে ভারত চিন সীমান্তের লিপুলেক পর্যন্ত প্রায় ৮০ কিলোমিটার দৈর্ঘ্য এই রাস্তা খুলে  দেওয়া অনেকটাই সুবিধে পাবেন তীর্থযাত্রীরা। কারণ নতুন এই রাস্তায় ফলে প্রায় ১০ কিলোমিটার কম পথ অতিক্রম করতে হবে। আর তাতে সময় বাঁচবে অনেকটাই। বর্তমানে তীর্থযাত্রীদের কৈলাশ মানসরোবর যাত্রা সম্পূর্ণ করতে  দুই থেকে তিন সপ্তাহ সময় লাগে। কিন্তু নতুন এই রাস্তার খুলে দেওয়া হলে যাত্রা সম্পূর্ণ করতে সময় লাগবে মাত্র ১ সপ্তাহ

আরও পড়ুনঃ টিকিটের ৩গুণ বেশি দাম দিতে অস্বীকার, মোদীর মডেল রাজ্য গুজরাতেই রক্তাক্ত হল শ্রমিক ...

আরও পড়ুনঃ মৃত্যুপুরী আমেরিকায় করোনা প্রাণ কাড়ল চিকিৎসক বাবা ও মেয়ে, জন্মসূত্রে তাঁরা ভারতীয় ...

কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে জানান হয়েছে, মানসরোবর যাত্রার ৮০ শতাংশ রাস্তাই ছিল চিনের মধ্যে দিয়ে। বর্তমানে ভারতীয় তীর্থযাত্রীরা ৮৪ শতাংশ দেশীয় রাস্তা ব্যবহার করতে পারবেন। নাত্র ১৬ কিলোমিটার যেতে হবে চিনের রাস্তা দিয়ে। গত দুবছরে রাস্তা তৈরির কাজ ত্বরান্বিত করা হয়েছিলয আগে বছরে যেখানে মাত্র ২ কিলোমিটার রাস্তা তৈরি করা হয়েছিল গতবছর একটা প্রায় ২০ কিলোমিটার রাস্তা তৈরির কাজ সম্পূর্ণ করা গিয়েছে।

 রাস্তা নির্মাণের কাজে অনেক বাধা অতিক্রমণ করতে হয়েছে বলেও জানিয়েছেন বর্ডার রোড সিকিউরিটি অর্গানাইজেশনের প্রধান জেনারেল হরিপাল সিং। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নীতিন গড়করির ট্যুইট করে এই রাস্তা জনগণের জন্য খুলে দেওয়ার কথা জানিয়েছেন। সেখানে তিনি বলেছেন সমুদ্রপৃষ্ট থেকে এই রাস্তার উচ্চতা প্রায় ১৭ হাজার ৬০ ফুট। রাস্তা অনেক উঁচুতে হওয়া তুষার পাতের কারণে বছের সাত মাসই কাজ বন্ধ রাখতে হত। মাত্র ৫ সাম নির্মান কাজ করা গেছে। রাস্তা নির্মাণের কাজে হেলিকপ্টার ব্যবহার করা হয়েছে বলেও তিনি জানিয়েছেন।
তবে এই রাস্তা সাধারণ মানুষের জন্য খুলে দেওয়ায় স্থানীয় বাসিন্দা আর তীর্থ যাত্রীদের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন পুরণ হয়েছে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রাজনাথ সিং।