মহারাষ্ট্রে সরকার গঠনের বিজেপি যেন তেন প্রকারে চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ করল শিবসেনা। শিবসেনার আরও অভিযোগ, রাষ্ট্রপতি শাসনের নীচে মহারাষ্ট্রে বিধায়ক কেনা বেচার চেষ্টা শুরু করেছে বিজেপি। মুখপত্র সামনাতে শিবসেনা মহারাষ্ট্রের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবীশের একটি মন্তব্যকে কটাক্ষ করেছে। সম্প্রতি এক বিবৃতিতে তিনি মন্তব্য করেন, এনসিপি, কংগ্রেস ও শিবসেনার জোটে মহারাষ্ট্র সরকার ছয় মাসের বেশি টিকবে না। সেই মন্তব্যকে কটাক্ষ করে সামনার এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, মহারাষ্ট্রে নয়া জোট অনেকের মাথা ব্যাথার কারণ হয়েছে।

শুক্রবার মহারাষ্ট্রের  বিজেপি প্রধান চন্দ্রকান্ত পাতিল এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন,  খুব শীঘ্রই বিজেপি মহারাষ্ট্রে সরকার গঠন করতে চলেছে। ২৮৮ আসনের বিধানসভা আসনে ১১৯  জন বিধায়কের সমর্থন দিতে বিজেপি প্রস্তুত। তারপরেই সামনা মন্তব্য করেন,  ১০৫টি আসনে জয় লাভ করে যারা  রাজ্যপালকে জানিয়েছিল সরকার গঠন করতে পারবে না, তারা এখন কীভাবে দাবি করে যে সরকার গঠন করতে পারবে।  বিজেপির  এই মন্তব্য বিধায়ক কেনা বেচার দিকে  ইঙ্গিত করছে। বিজেপির স্বচ্ছ সরকার গঠনের প্রতিশ্রুতি ক্রমেই মিথ্যা প্রতিশ্রুতিতে পরিণত হচ্ছে বলে সামনা তাদের প্রতিবেদনে দাবি করেছে। 

মঙ্গলবার থেকে মহারাষ্ট্রে রাষ্ট্রপতি শাসন চলছে। মহারাষ্ট্রের কোনও দল বা জোট পর্যাপ্ত বিধায়কের সমর্থন রাজ্যপালের কাছে দিতে না পারায় রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করা হয়েছে।মহারাষ্ট্রে বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা হওয়ার পরেই মুখ্যমন্ত্রীর আসনে ভাগ চেয়েছিল শিবসেনা। আড়াই বছরের জন্য বিজেপি থেকে মুখ্যমন্ত্রী হবে, আড়াই বছরের জন্য শিবসেনা থেকে মুখ্যমন্ত্রী হবে। এর জেরেই  বিরোধের সৃষ্টি হয়। তাতেই ভেঙে যায় শিবসেনার সঙ্গে জোট। কংগ্রেস ও এনসিপির সঙ্গে শিবসেনা মহারাষ্ট্রে সরকার গঠনের চেষ্টা করছে। কিন্তু সেখানেও সমস্যা দেখা দিয়েছে। শিবসেনার দরাদরিতে ভেস্তে যেতে পারে মহারাষ্ট্রে নয়া জোট গঠনের সম্ভাবনা।