শুক্রবার ভোররাতে হায়দরাবাদের গণধর্ষণ ও হত্যার ঘটনার অভিযুক্ত চারজন পুলিশি সংঘর্ষে খতম হয়েছে। কিন্তু একদিন আগেই উত্তরপ্রদেশের উন্নাও-এ আরও এক নির্যাতিতাকে আগুনে পুড়িয়ে মারার জঘন্য চেষ্টা হয়েছে। এখনও তিনি দিল্লির সফদরজং হাসপাতালে তিনি মৃত্য়ুর সঙ্গে লড়াই করছেন। এই নিয়ে উত্তাল হল লোকসভা।

আরও পড়ুন - অগ্নিদগ্ধ শরীর, ছুরির ক্ষত, নৃশংসতার শিউরে ওঠা বয়ান উন্নাও নির্যাতিতার

আরও পড়ুন - জীবন্ত জ্বালিয়ে দেওয়া হল উন্নাও-এর নির্যাতিতাকে, মুক্তি পেয়েই স্বমূর্তিতে ধর্ষকরা

আরও পড়ুন - ধর্ষকের হাতে দিন কন্ডোম, ধর্ষণকে আইনি স্বীকৃতি দেওয়ার দাবি তুললেন ফিল্ম নির্মাতা

কংগ্রেস পরিষদীয় দলের নেতা অধীর চৌধুরি এদিন অধিবেশনে বলেন, 'মানুষ কোথায় যাবেন, তেলেঙ্গানা ও উন্নাও-তে ধর্ষণের ঘটনা ঘটছে। উন্নাও-এর আক্রান্তের দেহ ৯৫ শতাংশ পুড়ে গিয়েছে। দেশে কী চলছে? একদিকে এখানে ভগবান রামের মন্দির নির্মিত হচ্ছে এবং অন্যদিকে রয়েছে সীতা মায়েরা। তাদের আগুনে পোড়ানো হচ্ছে। অপরাধীরা কীভাবে এত উৎসাহ পাচ্ছে?'

এরপরই উন্নাও কাণ্ডের প্রতিবাদ জানিয়ে কক্ষত্যাগ করেন কংগ্রেস সাংসদরা। হায়দরাবাদ কাণ্ডের পর বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর), ফের এক নৃশংস ঘটনার কথা সামনে এসেছে। ২০ বছরের এক তরুণী-কে গত মার্চ মাসে গণধর্ষণ করা হয়েছিল বলে অভিযোগ। দিন দুই আগেই অভিযুক্তদের জামিনে মুক্তি দেওয়া হয়। এরপর বৃহস্পতিবার আদালতে যাওয়ার পথে নির্যাতিতাকে ধর্ষকরা বেধারক মারধর করে, কুপিয়ে, তারপর আগুনে  পুড়িয়ে দেয়।