বিদেশ থেকে আসা তাবলিগি জামাত প্রতিনিধিদের নিয়ে রীতিমত কঠোর পদক্ষেপ নিল কেন্দ্রীয় সরকার। বৃহস্পতিবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের তরফ থেকে জানান হয়েছে আগামী দশ বছরের জন্য কালোতালিকাভুক্ত তাবলিগি জামাত সদস্যদের ভারতে প্রবেশের  অনুমতি দেওয়া হবে না। পাশাপাশি জানান হয়েছে সংশ্লিষ্ট তাবিলিগি জামাত সদস্যরা দেশের আইন ভঙ্গ করেছেন। ভেঙেছেন ভিসার নিয়মও। তাই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। 

কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে জানান হয়েছে ২২০০ জনেরও বেশি বিদেশী তাবলিগি জামাত প্রতিনিধিদের কালো তালিকাভুক্ত করা হয়েছে। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের তরফ থেকে জানান হয়েছে গত এপ্রিল মাসেই ৯০০ জন তাবলিগি জামাতকে কালো তালিকাভুক্ত করা হয়েছে। 

কেন্দ্রীয় সরকারের দাবি, তাবলিগি জামাতদের সংস্পর্শে আসায় দেশে ১৫,০০০ জন মানুষ করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। যার জন্য সরাসরি দিল্লির নিজামুদ্দিন কাণ্ডকে দায়ি করা হয়েছে।  মার্চ মাসের প্রথম দিকেই তাবলিগিদের অনুষ্ঠান ছিল দিল্লিতে। স্থানীয়দের অভিযোগ সেই অনুষ্ঠানে যোগ দিতে বিদেশ থেকে আসা তাবলিগিদের মাধ্যমেই করোনা সংক্রমণ বেড়ে গিয়েছিল।

শেষ ১৬ দিনে দেশে আক্রান্তের সংখ্যা লক্ষাধিক, আনলক আরও বিপদ ডেকে আনবে কি ...

লকডাউনে ফাঁক থাকায় করোনা সংকট কমেনি ভুল পথে চালিত হয়েছি, মন্তব্য শিল্পপতি রাজীব বাজাজের ...

'করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গেই শিথিল হচ্ছে লকডাউনের নিয়ম', সমালোচনা রাহুলের ...

সূত্রের খবর সেই সময় করোনার হটস্পট ইন্দোনেশিয়া, মালেশিয়ার মত দেশ থেকে এসেছিলেন তাঁরা।  অনুষ্ঠান শেষ হওয়ার পর প্রশাসনকে না জানিয়ে  অনেকেই চলে গিয়েছিলেন দেশের বিভিন্ন প্রান্তে। দিল্লির নিজামুদ্দিনের মসজিদে ঠাসাঠাসি করে থেকে গিয়েছিলেন প্রায় হাজার খানেক সদস্য। সংগঠনের প্রধানও আক্রান্ত হয়েছিল। কিন্তু তারপরেও মসজিদ ছাড়তে নারাজ ছিলেন অনেকেই।  যা নিয়ে সেই সময় রীতিমত উষ্মা প্রকাশ করেছিলেন অনেকেই। কেন্দ্রীয় সরকারের পাশাপাশি দিল্লির কেজরিওয়াল সরকারও নিশানা করেছিল তাবলিগি জামাতদের।