রবিবার আবাওর জঙ্গি হামলার সাক্ষী থাকল ভূসর্গ। এদিন শ্রীনগরের ওল্ড সিটি পুলিশ চেকপয়েন্টে হামালা চালায় একদল সন্ত্রাসবাদী। আচমকা এই হামলায় একসঙ্গে এক নিরাপত্তা রক্ষী ও এক স্থানীয় বাসিন্দা গুরুতর জখম হয়েছেন। জম্মু ও কাশ্মীর পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে সজগরিপোড়া এলাকায় একটি পুলিশ চৌকি স্থাপন করা হয়েছিল। সেখানেই হামলা চালায় জঙ্গিরা। তবে এই হামলায় দায় স্বীকার করেনি কোনও জঙ্গি সংগঠন। শ্রীনগরের পুলিশ সুপার, হাসিব মুঘল জানিয়েছেন পুলিশ চৌকিতে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়। আহতদের দ্রুত উদ্ধার করে শের ই কাশ্মীর ইনস্টিটিউট মেডিক্যাল সায়েন্স হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এখন দুজনের অবস্থাই স্থিতিশীল বলেও জানান হয়েছে। হামলার সঙ্গে সঙ্গে গোটা এলাকায় বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। জঙ্গিদের খোঁজে চিরুনি তল্লাশি চালান হচ্ছে বলেও জানান হয়েছে। 

তবে জম্মু ও কাশ্মীরসহ বিস্তীর্ণ এলাকায় সীমান্ত দিয়ে পাকিস্তান যে অনুপ্রবেশের চেষ্টা চালাচ্ছে তারও একবার প্রমাণ হল রবিবার। সীমান্তের ওপার থেকে সন্ত্রাসবাদীদের প্রচ্ছন্ন মদত দেওয়া হচ্ছে বলেও ভারত বারবার অভিযোগ করছে। নভেম্বর ও ডিসেম্বরে পরপর জঙ্গি হামলার খবর পাওয়া গেছে জম্মু ও কাশ্মীরের বেশ কয়েকটি এলাকা। জঙ্গি অনুপ্রবেশ ঘটাতে পাকিস্তান একাধিকবার যুদ্ধ বিরতে লঙ্ঘন করেছে বলেও দাবি করা হয়েছে। 

তবে কি করোনা রুখতে এবার ভারতেও ফাইজারের টিকা, জল্পনা উস্কে দিল একটি আবেদন ...

মহামারি পরবর্তী বিশ্বে আরও বাড়বে ক্ষুদার রাজ্য, এখন থেকেই সাবধান করছে রাষ্ট্র সংঘ ...


অন্যদিকে এদিন এদিনই পাক অধিকৃত কাশ্মীর সংলগ্ন এলাকা থেকে  উদ্ধার করা হয়েছে দুই নাবালিকাকে। স্থানীয় প্রশাসন জানিয়েছে পুঞ্চ সেক্টরের নিয়ন্ত্রণ রেখা সংলগ্ন এলাকা থেকে পাওয়া তাদের। দুজনেই পাক অধিকৃত কাশ্মীরের আব্বাসপুর এলাকার বাসিন্দা বলেও জানান হয়েছে। তারা ভারতের সীমানায় কেন প্রবেশ করেছে তা নিয়ে তদন্ত হচ্ছে বলেও দেখা হয়েছে। এলও সি বরাবর মোতায়েন করা হয়েছে ভারতীয় সেনা। স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনার পর তাদের ফেরত পাঠিয়ে দেওয়া হবে বলেও সূত্রের খবর।