ফেসবুকের পর এবার বিতর্কের মুখে পড়তে চলেছে সোশ্যাল মিডিয়া ট্যুইটার। সমরবিশেষজ্ঞ সাংবাদিক নীতিন গোখলের বয়ান অনুযায়ী ট্যুইটারে জম্মু ও কাশ্মীরকে চিনের অংশ হিসেবে দেখান হয়েছে। রবিবার মাইক্রব্লগিং সাইটের হয়ে একটি লাইভ অনুষ্ঠান করছিলেন তিনি। দুপুর ১২টা নাগাদ  লে-র পিপিল ওয়ার মেমোরিয়াল, হল অফ ফেমে থেকে শ্যুটিং করছিলেন। সেই সময়ই জায়গাটির লোকেশান হিসেবে সোশ্যাল মিডিয়ায় জায়গায় দাখানো হয়েছিল জম্মু ও কাশ্মীর চিনা ভূখণ্ডের অংশ। 

নীতিন গোখলে বিষয়টি জাতীয় সুরক্ষা দফতরের নজরে আনতে চান। পাশাপাশি তিনি বলেন তিনি লাইভ বরছিলেন। আর সেই সময় হল অব ফেম এর লোকশান জানতে চান। তখনই দেখেন সেটি চিনের অংশ। কিন্তু এই হল অফ ফেম লে-শহর থেকে মাত্র চার কিরোমিটার দূরে অবস্থিত। কার্গিল-লে-র রাস্তাতেই পড়ে এই হল অফ ফেম।  এটি  ভারত পাকিস্তান যুদ্ধের বীর শহিদ সৈনিকদের সমাধিক্ষেত্র। নীতিন গোখলে সোশ্যাল মিডিয়ায় এই বার্তা প্রকাশ করার অনেকেই লে- লোকেশান জানতে চায় ট্যুইটারের কাছে। তখনও ট্যুইটারের পক্ষ থেকে সেটিকে চিনের অংশ হিবেসে দেখান হয়েছে।


এই ঘটনাটি সামনে আসতে অনেক নেটিজেনই ট্যুইটারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন। একজনতো সারসরি বলেছেন, যে ট্যুইটার কী এবার নতুন করে ভৌগলিক অবস্থান নির্ণয় করবে। জম্মু ও কাশ্মীরকে চিনের অংশ হিবেসে দেখানো ভারতীয় আইনের পরিপন্থী বলে  দাবি করা হয়েছে। কেন্দ্র সরকারেরও দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন নেটিজেনরা। তবে বিষয়টি নিয়ে এখনও পর্যন্ত ট্যুইটারের পক্ষ থেকে কোনও বিবৃতি দেওয়া হয়নি।