এছাড়া আর কিছুই করার ছিল না দিল্লি পুলিশের। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক, গত ২৬ জানুয়ারি আন্দোলনকারী কৃষকদের বিরুদ্ধে দিল্লি পুলিশের পদক্ষেপকে এভাবেই সমর্থন জানিয়েছে। মন্ত্রকের তরফে বলা লোকসভায় লিখিত বিবৃতি দিয়ে জানান হয়েছে সাধারণতন্ত্র দিবসের বিক্ষোভকারী কৃষকদের বিরুদ্ধে দিল্লি পুলিশ ভিড় নিয়ন্ত্রণ করার জন্য হালকা কাঁদানে গ্যাস, জল কামান ও হালকা শক্তি প্রয়োগ করেছিল। কারণ দিল্লি পুলিশের কাছে এছাড়ার আর কোনও বিকল্প ছিল না। 

বলা হয়েছে কৃষকদের বিক্ষোভ চলাকালীন নিরাপদ শারীরিক দূরত্বের নিয়মাবলি অনুসরণ করা হচ্ছে। করোনভাইরাস সংক্রান্ত বিধিনিষেধও মানা হচ্ছে না। কৃষকরা ফেস মাস্ক ছাড়াই প্রচুর সংখ্যায় একজায়গায় জড়ো হচ্ছেন। লোকসভা একটি লিখিত জবাবে একথাই জানিয়েছেন প্রতিমন্ত্রী জি কিশন রেড্ডি। বলা হয়েছে, দিল্লি পুলিশ ২০২০ সালের সেপ্টেম্বর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রায় ৩৯টি মামলা দায়ের করেছে। গত ২৬ নভেম্বর থেকে দিল্লির উপকণ্ঠে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে পঞ্জাব হরিয়ানা উত্তর প্রদেশ সব বেশ কয়েকটি রাজ্যের কৃষকরা।  নতুন তিনটি কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবিতেই আন্দোলন চালাচ্ছে তারা। 

 

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক জানিয়েছে একনও পর্যন্ত দিল্লি পুলিশের কাছে একটি মাত্র আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে। বিক্ষোভকারী কৃষকদের ট্র্যাক্টর ব়্যালি চলাকালীন বিক্ষোভকারী কৃষকদের বিরুদ্ধে পুলিশি পদক্ষেপের প্রশ্নে জবাবে বলা হয়েছে কৃষকরা 'দাঙ্গা ' পরিবেশ তৈরি করেছিল। সরকারি সম্পত্তি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছিল। তাই পুলিশের কাছে আর অন্য কোনও বিকল্প ছিল না। মন্ত্রকের তরফে দিল্লি পুলিশের উদ্ধৃতি দিয়ে বলা হয়েছে আন্দোলনকারী কৃষকরা অত্যন্ত জোর করে নিজেদের পথে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছিল। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক আরও জানিয়েছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গিয়ে ৩০০ -র বেশি পুলিশ কর্মী জখম হয়েছে। এক আন্দোলনকারীর মৃত্যু হয়েছে। তবে বিক্ষোভকারীদের মধ্যে কত জন আহত হয়েছে সে সম্পর্কে তাদের কাছে কোনও খবর নেই। 

CBSE-র পরীক্ষা সূচি ঘোষণা, দেখে নিন কবে কী পরীক্ষা হবে .

দেখে নিন মায়ানমারের ভিইরাল ভিডিও, সেনা কনভয়ের সামনেই নিজের চর্চা চালাচ্ছেন মহিলা ...
আন্দোলনকারী কৃষকরা সাধারণতন্ত্র দিবসে ট্র্যাক্টর ব়্যালি করেছিল। সেই দিনই তাদের প্যারেড থেকে হিংসা ছড়িয়ে পড়ে। উত্তর হয়ে পড়ে দিল্লির রাজপথ। আন্দোলনকারীরা রীতিমত তাণ্ডব চালায় লালকেল্লায়। পুলিশের ব্যারিকেড ভেঙে আন্দোলনকারীরা এগিয়ে গিয়েছিল বলেই দাবি করেছিল প্রশাসন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ অত্যান্ত সংযমের পরিচয় দিয়েছে বলেও জানিয়েছিলেন দিল্লির পুলিশ কমিশনার।