আবারও অত্যাচারের ভয়ঙ্কর ছবি সামনে এল উত্তর প্রদেশে। এবার সাক্ষী রইল কনৌজের গুপসাইগুঞ্জ গ্রামের বাসিন্দারা। অভিযোগ স্থানীয় বেশ কয়েকজন মানুষ স্থানীয় এক এক বিধবা মহিলার মাথা মুড়িয়ে মুখে কালি লেপে, জুতোরা মালা পরিয়ে গোটা গ্রাম ঘোরায়। এই নির্মম অত্যাচারের হাত থেকে বাদ যায়নি মহিলার শারীরিক প্রতিবন্দ্বী পুরুষ সঙ্গীটিও। 


উত্তর প্রদেশ পুলিশ জানিয়েছে, কনৌজের একটি গ্রামে এক বিধবা মহিলা বেশ কয়ের দিন ধরেই শারীরিকভাবে বিশেষ সক্ষম এক পুরুষের সঙ্গে একসঙ্গে থাকছিলেন। তাঁরা লিভইন সম্পর্কে রয়েছেন বলেও দাবি করেন স্থানীয়রা। কিন্তু বিধবা মহিলার এই আচরণ মেনে নিতে পারেননি তাঁর শ্বশুরবাড়ির মানুষজন। তাই তারা চড়াও হয় বিধবা মহিলা ও তাঁর সঙ্গীর ওপর। মারধর করে মাথা মুড়িয়ে মুখে কালি লেপে জুতোর মালা পরিয়ে ঘোরানো হয় গ্রামে। 

দুজনকেই উদ্ধার করেন স্থানীয় সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। স্থানীয় প্রশাসন জানিয়েছে এই ঘটনায় মহিলার পরিবারের সদস্যদের পাশাপাশি হাত রয়েছে তার পুরুষ সঙ্গীর পরিবারের সদস্যদেরও। বিধবা মহিলার সঙ্গে সম্পর্ক দুই পরিবারের সদস্যরা মেনে নিতে পারেই এমন আচরণ করেছে বলেও জানিয়েছে পুলিশ। ইতিমধ্যেই মহিলার পরিবারের দুই সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদের খোঁজে চলছে তল্লাশি। 

ধানের ট্রাকে মূর্তি পাচার ছক গেল ভেস্তে, উদ্ধার হল ৩৫ কোটি টাকার ২৫টি প্রাচিন মূর্তি ...

করোনার প্রতিষেধকের জন্য কি অপেক্ষা শেষ হচ্ছে, সৌম্যা স্বামীনাথনের কথায় আবারও শুরু জল্পনার ...
কয়েক মাস আগেই ৩৬ বছরের ওই মহিলার স্বামী আত্মহত্যা করেন। তারপর থেকেই ৪০ বছরের ওই প্রতিবন্দ্বী প্রতিবেশী মহিলার দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন। বিধবা মহিলার সন্তানদের ভরণপোষণের দায়িত্ব গ্রহণ করেন। তাতেই পরিবারের সদ্যদের রোষের মুখে পড়তে হয় দুই জনকে। 

করোনা সংক্রমণ রুখতে এন ৯৫ মাস্কে ভরসা ভারতীয় বিজ্ঞানীদের, বললেন মাস্ক কতটা জরুরি