শনিবার করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন নিয়েছিলেন। তাঁর ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লেন উত্তর প্রদেশের মুরাদাবাদের সরকারি হাসপতালের কর্মী ৪৮ বছরের মহিপাল সিং। এই ঘটনা সামনে আসতে কিছুটা হলেও আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। যদিও মুরাদাবাদের জেলা শাসক জানিয়েছেন এই হাসপাতাল কর্মীর মৃত্যুর সঙ্গে করোনাভাইরাসের টিকা কোনও সম্পর্ক নেই। 

শনিবার দুপুর ১২টা নাগাদ মহিপাল সিং পুনের সেরাম ইনস্টিটিউটের তৈরি করোনাভাইরাসের টিকা কোভিশিল্ড নিয়েছিলেন। রবিবারই তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। শ্বাসকষ্ট শুরু হয়।সঙ্গে বুকে ব্যাথাও অনুভব করেন। তারপরই তাঁর মৃত্যু হয়। জেলা স্বাস্থ্য আধিকারিকরা অবশ্য মনে করছেন না টিকার বিরুপ প্রতিক্রিয়ার কারণেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে। স্বাস্থ্য দফতর সূত্র জানান হয়েছে, শনিবার টিকা নেওয়ার পরেই নাইট ডিউটি করেছিলেন মহিপাল সিং। সেই সময় তাঁর শরীরে কোনও অস্বস্তি দেখা যায়নি। অন্যদিকে পরিবার জানিয়েছে তিনি অসুস্থ ছিলেন। জেলা স্বাস্থ্য দফতর জানিয়েছে, মৃত্যু কারণ খতিয়ে দেখা হবে। করা হবে ময়না তদন্তও। 

সৎছেলের কন্যা সন্তানের জন্ম দিলেন মা, সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল রাশিয়ান ব্লগারের প্রেম কাহিনি ...

আমেরিকা, ফ্রান্সের থেকে এগিয়ে ভারত, দ্বিতীয় দিনে ১৭ হাজারেও বেশি টিকাদান বলে দাবি স্বাস্থ্য মন্ত্রকে..

উত্তর প্রদেশ সরকার জানিয়েছে, ময়না তদন্তের প্রাথমিক রিপোর্টে মৃত্যুর কারণ হিসেবে কার্ডিয়াক শক বলা হয়েছে। নিহতের ছেলে বিশাল সিং জানিয়েছেন তাঁর বাবা অসুস্থ ছিলেন। টিকা নেওয়ার পরেও অসুস্থতা বোধ করেন। তাঁকে বাড়িয়ে নিয়ে আসা হয়। সেই সময় তাঁর কাশি হচ্ছিল। সর্দিও ছিল। সেই সময়ও বুকে অস্বস্তি ছিল তাঁর। উত্তর সরকার বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে শনিবার ভারতের কোভিড টিকা প্রদানের প্রথম দিনেই ২২ হাজার ৬৪৩ জনকে টিকা প্রদান করা হয়েছে। পরবর্তী টিকা প্রদান কর্মসূচি ২২ জানুয়ারি।