ধনকুবের মুকেশ আম্বানির বাসভবন 'আন্টালিয়া'র সামনে  উদ্ধার হয়েছে গাড়ি ভর্তি বিস্ফোরক। এসইউভি-তে ভর্তি  বিস্ফোরক উদ্ধার হওয়ার পরেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে মুম্বই এাকায়া। মুকেশ আম্বানির বাড়ির সামনে কারা এই গাড়ি রেখেছিল, তা নিয়ে উঠছে একাধিক প্রশ্ন। তবে শুধু বিস্ফোরক নয় পাশাপাশি উদ্ধার হয়েছে পরিত্যক্ত গাড়ি। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেল বম্ব স্কোয়াড এবং পুলিশ। গেটা এলাকা জুড়ে কড়া নিরাপত্তা আরও জোরদার করা হয়েছে।

 

 

গতকাল আম্বানির বাড়ির সামনে ঘটা ঘটনায় তড়িঘড়ি তদন্তে নেমেছে পুলিশ। সেখান থেকে পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে,গাড়ির ভিতর থেকেও উদ্ধার করা হয়েছে ২০ টি জিলেটিন স্টিক। এবং গাড়িতে একটি চিঠিও উদ্ধার হয়েছে। তারপর থেকেই কৌতূহল আরও বাড়ছে। কারা এই চিঠি গাড়িতে রেখে গেছে, উঠছে একাধিক প্রশ্ন। যদিও পুলিশের পক্ষ থেকে চিঠি সম্পর্কিত কোনও তথ্য জানা যায়নি, কিছুর ইঙ্গিত রয়েছে কিনা তাও প্রকাশ্যে আসেনি।

আরও পড়ুন-নীরব মোদীকে দেশে ফেরানোর রাস্তা পরিষ্কার, বাধা কাটালেন যুক্তরাজ্যের বিচারক...

মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্টমন্ত্রী অনিল দেশমুখ জানিয়েছন, গোটা ঘটনার তদন্ত করছে মুম্বই পুলিশের ক্রাইম ব্রাঞ্চ। বৃহস্পতিবারই কারমাইকেল রোডে একটি সন্দেহজনক গাড়ির খোঁজ মেলে। এরপরই কোঝিকোডে ১০০টি জিলেটিন স্টিক এবং ৩৫০ টি ডিটোনেটার এক যাত্রীর কাছ থেকে পাওয়া যায়, তবে সেই ব্যক্তিক সঙ্গে মুকেশের বাড়ির কোনও যোগ রয়েছে কিনা তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এমনকী যেই গাড়িটি মুকেশ আম্বানির বাড়ির সামনের থেকে উদ্ধার হয়েছে তার রেজিস্ট্রেশন নম্বর আম্বানির নিরাপত্তা বলয়ের সঙ্গেও মিলে যাচ্ছ। তবে আম্বানির সুরক্ষা কবজের কোন লোক এর সঙ্গে জড়িয়ে আছে কিনা তার সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না। গোটা ঘটনার পুলিশ তদন্তে নেমেছে। ইতিমধ্যেই ভারতীয় দন্ডবিধির ২৮৬, ৪৬৫, ৪৭৩ ধারায় পরপর মামলা রুজু করা হয়েছে। এবং এক্সপ্লোসিভ সাবসটেন্স অ্যাক্টের ১৯০৮ ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে।