পূর্ব লাদাখ সেক্টরের লাদাখ থেকে সেনা সরিয়ে নেওয়ার বিষয়ে দুই দেশ এক মত হয়েছে। বুধবার চিনা প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের পর প্রায় একি সুরে কথা বলেছেন ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং। তারপরই সংবাদ সংস্থা এএনআই একটি ভিডিও প্রকাশ করেছে যেখানে দেখা যাচ্ছে চিনের ট্যাঙ্ক সহ বেশ কিছু সমর যান এলাকা থেকে সরে যাচ্ছে। একই সঙ্গে ভারতীয় সেনাবাহিনীর ট্যাঙ্কগুলিও সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে বলে দেখা যাচ্ছে ভিডিওটিতে। সংবাদ সংস্থা এএনআই জানিয়েছে ভিডিওটি ভারতীয় সেনা বাহিনীর। ১ মিনিট ১৫ সেকেন্ডের ভিডিওটি দুই দেশের সেনা বাহিনীকে চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করতও দেখা গেছে। ভিডিওটিতে ভারতীয় ট্যাঙ্ক সরিয়ে নেওয়ার বিষয়টি যেথন তুলে ধরা হয়েছে তেমনই চিনের পিপিলস লিবারেশন আর্মির ট্যাঙ্ক গুলি সরিয়ে নেওয়ার বিষয়টিও তুলে ধরা হয়েছে। 

বৃহস্পতিবার প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং রাজ্যসভায় জানিয়েছেন ভারত ও চিন পশ্চিম হিমলায়ের তীব্র লড়াইয়ের কেন্দ্রবিন্দু প্যাংগং লেক থেকে সরে যাওয়ার বিষয়ে সর্বসম্মত হয়েছে। উত্তর ও দক্ষিণ উভয় তীর থেকেই সেনা সরিয়ে নেওয়ার পরিকল্পনা করছে বলেও জানিয়েছেন তিনি। রাজনাথ সিং পার্লামেন্টে বলেছিলেন যে পারমানবিক প্রতিবেশীদের সামরিক কমান্ডার ও কূটনৈতিকদের মধ্যে কয়েক দফা আলোচনার পর সমুদ্র পৃষ্ট থেকে ১৪ হাজার ফুট উচ্চতায় হিমবাহ লেক প্যাংগং তসো থেকে সেনা সরিয়ে নেওয়ার বিষয়ে ঐক্যমত পোষণ করেছে দুটি দেশই। 

ঋষিগঙ্গার জলে অশনি সংকেত দেখছে প্রশাসন, বন্ধ করা হল তপোবন টানেলের উদ্ধারকাজ ...

'ভোটের পর জয় শ্রীরামের জপ করবেন মমতা দিদি', কোচবিহারের জনসভায় বললেন অমিত শাহ ...
বৃহস্পতিবার রাজ্যসভায় রাজনাথ সিং বলেন উভয় পক্ষের প্রথম দিলে সম্পূর্ণ নিষ্ক্রিয়তা অর্জন করা উচিৎ আর দ্বিপাক্ষিক টুক্তি ও প্রোটোকলগুলি সম্পূর্ণ রূপে মেনে চলা উচিৎ। এখন অবধি চিনা পক্ষ ভারতে চিন্তাভাবনা সম্পর্কে সম্পূর্ণ সচেতন রয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি। পাশাপাশি তিনি লাদাখে কঠোর পরিস্থিতির মোকাবিলা করার জন্য ভারতীয় সেনাদের ভয়সী প্রশংসাও করেন তিনি। বলেছেন ভারত কখনই চিনের অযৌক্তিক দাবি মেনে নেয়নি। একই সঙ্গে রাজনাথ সিং জানিয়েছেন, চিনাদের এক ইঞ্চি জমিও দখল করতে দেবে না ভারত। 

পূর্ব লাদাখ সেক্টরের কথা বলতে গিয়ে এদিন রাজনাথ পাকিস্তানকেও নিশানা করেন। তিনি বলেন পাকিস্তান অবৈধভাবে ভারতের জমি চিনকে দিয়ে দিয়েছে। কিন্তু ভারত এজাতীয় ব্যবস্থা মেনে নিতে নারাজ। অন্যদিকে চিনও ভারতের দখলে থাকা বৃহৎ ভূখণ্ড দাবি করেছে। যা মেনে নেওয়া হবে না বলেও জানিয়েছেন তিনি।