গার্হস্থ্য প্রতিহিংসার কবলে পড়ে মেয়েদের করুণ পরিণতির কথা প্রায়শই টেলিভিশনের পর্দায় বা সংবাদপত্রে উঠে আসে। কিন্তু এবার স্বামীর বর্বরোচিত আচরণের শিকার হলেন খোদ মন্ত্রীর স্ত্রী! উত্তরপ্রদেশের এক সিনিয়র সরিকারি আধিকারিকের স্ত্রী তাঁর স্বামীর নির্মম অত্যাচারের হাত থেকে বাঁচতে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সাহায্য প্রার্থনা করেছেন। 

সূত্রের খবর অভিযুক্ত বাবুরাম নিশাদ নামে ওই ব্যক্তি উত্তরপ্রদেশ সরকারের মন্ত্রীর পদে রয়েছেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্টে তাঁর স্ত্রী নিতু লিখেছেন, তাঁর স্বামী তার ওপর অকথ্য অত্যাচার করেছে এমনকী খুনের হুমকিও দিয়েছে । বিস্ফোরক সেই সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টে অভিযোগকারী ওই মহিলা লেখেন, তাঁর স্বামী তাঁর গায়ে নিত্যদিন হাত তোলেন, এমনকী তাঁকে গুলি করে খুনের হুমকিও দিয়েছেন। শুধু তাই নয় তাঁর গায়ে প্রস্রাবও করতেন বলে অভিযোগ জানান তিনি।শারীরিক অত্য়াচারের পাশাপাশি তাঁর মা-বাবা এবং ভাইকেও খুনের হুমকি দিতেন তিনি।  একজন মন্ত্রী হওয়া সত্ত্বেও তাঁর সঙ্গে এমন ব্যবহার করেন তিনি। তাঁর আরও দাবি, পুলিশের সঙ্গেও তার বিশেষ যোগসূত্র রয়েছে আর সেই কারণেই, পুলিশের তরফে তাঁকে জানানো হয়েছে যে, সমস্যাটি যেন তারা ঘরোয়াভাবে মিটিয়ে নেয়। 

আরও পড়ুন- মন্দিরে নিষিদ্ধ পশু-পাখির বলি, ঐতিহাসিক রায় দিল ত্রিপুরা হাইকোর্ট

আরও পড়ুন- মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে নির্মম হত্যাকাণ্ড, গুলিবিদ্ধ হয়ে প্রাণ হারালেন শিখ পুলিশ অফিসার

আরও পড়ুম- উপত্যকায় দুই সন্দেহভাজনের উপস্থিতি, চলল গুলির লড়াই, তল্লাশি অভিযানে সেনাবাহিনী

পুলিশে বেশ কয়েকবার কোনও অভিযোগ জানিয়েও কোনও লাভ না হওয়ায় গোটা বিষয়টি জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং উত্তরপ্রদেশের মুখ্য়মন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে চিঠিও লেখেন তিনি। তাঁদের বিয়ে হয়েছে ১৪ বছর। আর বিয়ের পর থেকেই এই অকথ্য নির্যাতনের শিকার হন ওই মহিলা। প্রসঙ্গত, মন্ত্রীর তরফে হারিমপুর জেলার একটি আদালতে তালাকের আবেদন করেছেন বলে জানা গিয়েছে। তাঁর অভিযোগ, তাঁর স্ত্রী কেবল তার সঙ্গে ঝগড়া করে এবং জোর করে টাকা চান, অহেতুক টাকাও খরচ করেন তাঁর স্ত্রী, সেই কারণেই বিবাহ বিচ্ছেদ চান বলে জানান তিনি।