রমজান মাস শুরু হয়েগেছে। মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ রোজা রাখতে শুরু করেছেন। এই পরিস্থিতি তাঁদের আরও বেশি করে প্রার্থনা করা উচিত। পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী মুসলিম সম্প্রদায়ের কাছে আরও বেশি করে প্রার্থনা করার আর্জি জানান। তাঁর কথায় মুসলিমদের উচিৎ আরও বেশি করে ইবাদত করা, যাতে ইদের আগেই বিশ্ব করোনাভাইরাসের সংক্রমণের হাত থেকে রেহাই পেতে পারে। বা বিশ্ব করোনা মুক্ত হতে পারে। রবিবার ৬৪তম মন কি বাত অনুষ্ঠানে এমন কথাই বলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। 

মন কি বাত অনুষ্ঠানের শুরুতেই প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, করোনার সংক্রমণ রুখতে গোটা দেশে ঐক্যবদ্ধভাবে লড়াই করছে। তালি, থালি, দিয়া মোমবাতি সব মিলিয়ে মনে হচ্ছে দেশে একটা মহাযজ্ঞ চলছে। আর সেই যজ্ঞে যে যেভাবে পেরেছে সামিল হয়েছে। 

মোদী বলেন, গত রমজানে কেউ আশাই করতে পারেনি যে এক বছরের মধ্যে এরকম ভয়ঙ্কর পরিস্থিতির মুখোমুখি হবে বিশ্ব।এখন আমরা সংকটে পড়েছি। তাই অত্যন্ত ধৈর্য্য আর নিঃস্বার্থতার সঙ্গেই মাসটি পালন করতে হবে।  

আরও পড়ুনঃ করোনার থেকে শিক্ষা নিয়েছে ভারতের সেনাবাহিনী, আগামীর পরিকল্পনা নিয়ে মুখ খুললেন বিপিন রাওয়াত ...

আরও পড়ুনঃ লকডাউন আরও বাড়তে পারে মুম্বইতে, আপাতত দিল্লিতে দোকানপাট বন্ধ রাখার নির্দেশিকা ..

রমজানের এই সময় মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ স্থানীয় প্রশাসনের নির্দেশিকা মেনে তচলবে বলেও তিনি আশা প্রকাশ করেন। পাশাপাশি ধর্মীয় নেতাদের কাছে তিনি আর্জি জানিয়েছেন দেশের সমস্ত মানুষকে তাঁরা যেন করোনাভাইরাসের সংক্রমণের হাত থেকে  বাঁচতে সচেতন হতে আবেদন জানান। প্রার্থনার সময় নিরাপদ সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখারও আবেদন জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।  

উৎসবের প্রসঙ্গ টেনে এনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে  বিহু, বৈশাখীসহ একাধিক উৎসবই মানুষ ঘরে বসে পালন করেছেন। এই অবস্থায় সংক্রমণ রুখতে লকডাউনের পথে হেঁটেছে দেশ। এই অবস্থায় দাঁড়িয়ে উৎসবের আবহে  সামাজিক কর্তব্য পালন করার ওপরও জোর দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।