প্রেম-ভালবাসা-বন্ধুত্বের সঙ্গে গোলাপ ফুল অবিচ্ছেদ্যভাবে জড়িয়ে। তবে ভ্যালেন্টাইন্স দিবসের রোজ ডের সঙ্গে কিন্তু আজকের দিনটির কোনও সম্পর্ক নেই। তবে ক্যান্সারের মতো মারণ রোগের সঙ্গে যারা নিত্য়দিন যুদ্ধ করে চলেছে, তাদের জীবন একটুককরো আনন্দ এনে দেওয়ার জন্য ২২ সেপ্টেম্বর দিনটি বিশ্ব গোলাপ দিবস হিসাবে পালন করা হয়। 

আর এই বিশেষ দিনটি উপলক্ষে ক্যান্সার রোগীদের গোলাপ ফুল, কার্ড এবং উপহার প্রদান করা হয়। সেইসঙ্গে ক্যান্সার আক্রান্তদের শক্তি যোগাতে বিশেষ অনুষ্ঠানেরও আয়োজন করা হয়। সেইসঙ্গে ক্যান্সারের মতো রোগের সঙ্গে লড়াইকে সম্মান জানাতেই এই বিশেষ দিনটি উদযাপন করা হয়ে থাকে। প্রসঙ্গত এই গোলাপই হল ভালবাসার প্রতীক, কোমলতারপ্রতীক, আর তাই এই বিশ্ব গোলাপ দিবসে ক্যান্সার আক্রান্তদের গোলাপ ফুল দেওয়া হয়, যাতে ক্যান্সার রোগের সঙ্গে লড়াইয়ে প্রত্যেকটি ক্যান্সার আক্রান্ত মানুষ যাতে নিজেদের মধ্যে শক্তি ও সাহস যোগাতে পারে। 

আরও পড়ুন- সেনা শিবিরে আটকে রেখে চলল ব্যাপক মারধর, বিষ খেয়ে আত্মঘাতী কাশ্মীরি কিশোর

আরও পড়ুন- হিউস্টনে প্রধানমন্ত্রী, এক ঝাঁক অনাবাসী ভারতীয় উষ্ণ অভ্যর্থনা জানালেন মোদীকে

আরও পড়ুন- সন্ত্রাসবাদে অস্ত্র যোগানের অভিযোগ, দক্ষিণ কাশ্মীরে পুলিশের জালে দুই জইশ জঙ্গি

আরও পড়ুন- বাম্পার লটারিতে খুলে গেল ভাগ্য, রাতারাতি ১২ কোটি টাকার মালিক সোনার দোকানের ৬ কর্মচারী

তবে জানেন কী কার নামে উৎসর্গিত এই বিশ্ব গোলাপ দিবস। ক্যালেন্ডারের এই তারিখে বিশেষ এই দিনটি কানাডার ১২ বছর বয়সী মেলিন্ডা রোজ-এর স্মরণে পালন করা হয়। ছোট্ট এই মেয়েটি এক বিরল ব্লাড ক্যান্সার, আস্কিন'স টিউমারে আক্রান্ত হয়েছিল। মেলিন্ডার জীবনের গল্প অনেককেই স্পর্শ করেছে। সে তাঁর শেষ নিঃশ্বাস অবধি বাঁচার আশা ছাড়েনি। জীবনের শেষ ছয় মাস তীব্র যন্ত্রণায় জর্জরিত হয়েও সে এই মারণ রোগের সঙ্গে আপ্রাণ লড়াই চালিয়ে গিয়েছিল এবং তার আশেপাশে থারা মানুষদের ইতিবাচকভাবে স্পর্শ করে গিয়েছিল। 

মানুষের জীবনকে তাঁর জীবনযুদ্ধের গল্পে উদ্বুদ্ধ করে তুলতে সে নিয়মিত চিঠি, ইমেল, কবিতা লিখত। শোনাত তাঁর জীবন যুদ্ধে সংগ্রামের কাহিনী। ক্যান্সার আক্রান্ত হয়েও নিজের জীবনযুদ্ধের কথা যেভাবে সে নিজের বয়ানে তুলে ধরেছে তার মাধ্যমে তাকে স্মরণ করতেই এই বিশেষ দিনে তাঁরে স্মরণ করা হয় প্রতি বছর এই বিশ্ব গোলাপ দিবসের মাধ্যমে।