হ্যালোইনের রাত। ভুত-প্রেত-দৈত্য-দানোদের উদযাপনের রাত। অনেকেই বিশেষ করে পশ্চিমী দেশে এই রাতে বিভিন্ন উদ্ভট পোশাকে সাজেন। সেরকমই মধ্যযুগীয় পোশাক পরে এগিয়ে এসেছিল একজন। হাতে ছিল তরোয়াল। হ্যালোইনের রাতে নকল তরোবারি হাতে মধ্যযুগীয় পোশাক পরে ঘোরাটা মোটেই কোনও ব্যতিক্রমী বিষয় নয়। কিন্তু এই ব্যক্তির হাতের তরোয়ালটি ছিল আসল, খেলনা নয়। আর সেই তরোয়ালের আঘাতে প্রাণ গেল অন্তত ২ জনের, আরও ৫ জন গুরুতর জখম হয়েছেন। রবিবার ভোরে যা নিয়ে আতঙ্ক ছড়ালো কানাডার কেবেক শহরে।

রবিবার ভোরে কেবেকের ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলি ভবন

কানাডার পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনাটি ঘটে কেবেক সিটি-র ঐতিহাসিক ওল্ড কেবেক পাড়ায়। শনিবার রাত সাড়ে ১০ টা নাগাদ ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলি ভবনের কাছ থেকে প্রথম তরোয়ালের আঘাতের খবর পেয়েছিল পুলিশ। তারপর ওই এলাকাতেই কোলা তরোয়াল হাতে দাপিয়ে বেরিয়েছিল মধ্যযুগের পোশাক পরা ওই দুষ্কৃতী। তার সেই মধ্যযুগীয় বর্বরোচিত হামলায় ঘটনাস্থলেই অতিরিক্ত রক্তপাতে মৃত্যু হয় দু'জনের। বাকি পাঁচজনকে গুরুতর আঘাত-সহ ভর্তি করা হয়েছে স্থানীয় হাসপাতালে।

সন্দেহভাজনকে গ্রেফতার করে নিয়ে যাচ্ছে পুলিশ

রবিবার ভোর ১টা নাগাদ ওই এলাকা থেকেই এক সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে কানাডার পুলিশ। কেবেক সিটি পুলিশের মুখপাত্র এতিয়েন ডায়ন জানিয়েছেন 'সন্দেহভাজন' ওই ব্ক্তির বয়স ২৪-২৫ বছর। আটক করার সময়ে তার পরণে মধ্যযুগীয় পোশাক ছিল এবং তার কাছ থেকে হত্যালীলায় ব্যবহৃত তরোয়ালটিও উদ্ধার করা হয়েছে। তবে আততায়ীর পরিচয় প্রকাশ করেনি পুলিশ। তাকে আপাতত হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে শারীরিক মূল্যায়নের জন্য। কী উদ্দেশ্যে সে হামলা চালালো, তাও তদন্তের স্বার্থে এখনই জানায়নি পুলিশ। সন্দেহভাজনকে গ্রেফতার করা হলেও বিপদ এখনই কেটে গিয়েছে বলে মনে করছে না সেখানকার পুলিশ। ওই এলাকার বাসিন্দাদের বাড়ির ভিতরেই থাকতে বাল হয়েছে।

শনিবার বিকেলেই ফ্রান্সের লিওঁ শহরে এক গ্রিক অর্থোজডক্স চার্চে বন্দুক হামলা হয়েছিল। গুলিবিদ্ধ হন এক পাদরি। সেই ঘটনার নিন্দা করেছিলেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ত্রুদো। তবে রবিবার ভোরে তাঁর দেশে ঘটে যাওয়া এই ভয়ানক ঘটনা নিয়ে এখনও তিনি কোনও প্রতিক্রিয়া দেননি।