এ যেন এক অন্য় স্বাদ। বাড়ির থেকে দূরে কিন্তু বড়দিনকে সঙ্গে নিয়েই আনন্দে মেতে উঠলেন মহাকাশ্চারীরা। মহাকাশেই বানিয়ে ফেললেন কুকিজ। তবে পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাতে না পারলেও, স্পেশ স্টেশনে সহকর্মীদের সঙ্গেই ক্রিসমাস পালন করলেন মহাকাশ্চারীরা। সম্প্রতি তারই ছবি দিয়ে টুইটারে পোস্ট করলেন বিজ্ঞানী ক্রিশ্চিনা হ কোচ।

 

আরও পড়ুন, প্রেমিকার বুকে বারবার ছুরির আঘাত, ক্রিসমাসের ভোরে ভয়ানক ঘটনার সাক্ষী ছয় সন্তান


সবাই যখন পরিবারের সঙ্গে বড়দিন উজ্জ্বাপনে ব্য়স্ত, তখন নিজের পরিবার থেকে অনেক দূরে মহাকাশ্চারীরা কুকিস বানাতে ব্য়স্ত। মহাকাশে সহকর্মীরাই সেখানে কাছের লোক। তাদের সঙ্গেই যে সারাদিন সময় কাটানো হয়। তাই কাজের বাইরের আকাশটা আর দেখার সৌভাগ্য় না হলেও বন্ধুত্বেই সেই আনন্দ মেলে  মহাকাশ্চারীদের।এই প্রথম স্পেশ স্টেশনে (আইএসএস)  কুকিজ বানানো হল। তবে মাইক্রোগ্র্যাভিটির জন্য বিশেষ ডিজাইন করা মাইক্রোআভেনে করে কুকিস বেক করা হল। যে কুকিজটি সিল করা ও  খাওয়া হয়নি। এই বানানো কুকিসটি, পৃথিবীতে নিয়ে আসা হবে। তারপর পরীক্ষা  করে দেখার পরেই চেখে দেখা হবে  বলে জানা গিয়েছে। 

আরও পড়ুন, নতুন বছরে বিয়ের পিড়িতে বসার আগে করতে হবে কোর্স, বাধ্যতামূলক সরকারি শংসাপত্র


তবে  কুকিস বানানোর সিদ্ধ্য়ন্ত যে হঠাৎ নেওয়া হয়েছে, তা কিন্তু নয়। প্রায় অনেকগুলি দিন ধরেই চলেছে এর পরিকল্পনা। কারন মহাকাশে মাইক্রোগ্র্যাভিটির জন্য় কম কসরত করতে হয়নি মহাকাশ্চারীদের। তারপর তাদের মাথা থেকে বেরিয়ে আসে মাইক্রোগ্র্যাভিটিতেও কামাল করে দেখাবে, বিশেষ ডিজাইন করা ওই মাইক্রোআভেন। এছাড়া যান্ত্রিক হাজারো ঝক্কি সামলে শেষ অবধি তারা বড়দিনের দিন স্পেশ স্টেশনে সহকর্মীদের সঙ্গেই মেতে ওঠে কুকিস তৈরির কাজে।