বিশ্ব জুড়ে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে করোনাভাইরাস। এই মরাত্মক ছোঁয়াচে রোগ চিনই গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ আমেরিকা, ইংল্যান্ডসহ একাধিক দেশের। যদিও চিন এই বিষয়ে মুখ খুলতে নারাজ। কিন্তু বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা পাশে দাঁড়িয়েছে চিনের। এই পরিস্থিতিতে দঁড়িয়েও নিজের লক্ষ্য়ে অবিচল চিন। মঙ্গলবারই সফল উৎক্ষেপন হল লংমার্চ ৫বি রকেটের। 

চলতি বছরের ডিসেম্বরেই চন্দ্র অভিযানের সুচি নির্ধারণ করেছে চিন। সেইমত এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে নিজেদের পরিকল্পনাও। তারই একটি অঙ্গ ছিল লংমার্চ ৫বি রকেটের উৎক্ষেপণ। মঙ্গলবার চিনের দক্ষিণে অবস্থিত হাইনান দ্বীপ থেকে এই রকেট উৎক্ষেপণ করা হয়। ১৭৬ ফুট লম্বা এই রকেটটি এদিন পরীক্ষামূলকভাবে ওড়ান হয়। এটি অত্যাধুনিক প্রযুক্তির রকেট বলেই দাবি করেছে চিনের এরোস্পেশ সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি কর্পোরেশন। ২৫ মেট্রিকটন ভার উত্তোলন করতে সক্ষম এই রকেটটি। 

আরও পড়ুনঃ আইআইটি জেইই ও এনইইটি পরীক্ষার দিন ঘোষণা, সেপ্টেম্বরেই নতুন শিক্ষাবর্ষের ইঙ্গিত মন্ত্রীর

তবে গত মার্চ ও এপ্রিল মাসে ৭এ ৩বি মডেলের রকেট উৎক্ষেপণে সাফল্য অর্জন করতে পারেনি চিন। চিনের সংবাদ সংস্থা  জিনহুয়া দাবি করেছে যাত্রী বিহীন অবস্থাতেই উৎক্ষেপণ হয়। মহাশূন্যে তা প্রবেশ করেছে। বিজ্ঞানীদের দাবি সোভিয়েত ইউনিয়নের সোয়ুদ মডেলের ওপর ভিত্তি করেই তৈরি করা হয়এছে ৫ব রকেটের ক্যাম্পুল। আধুনিক এই প্রযুক্তিতে তৈরি রকেট তিনের পরিবর্তে ৬ নভশ্চারীকে নিয়ে যেতে সক্ষম। 

আরও পড়ুনঃ করোনাভাইরাসের অ্যান্টিবডি তৈরি ইজরায়েলের পরীক্ষাগারে, আগামী দিনে কি খুলে যাবে নতুন চিকিৎসা পদ্ধতি

চিনের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে এই রকেটটি একটি স্থায়ী স্পেস  স্টেশন চালাতে সক্ষম। পাশাপাশি নভশ্চারীদের চাঁদে নিয়ে যাওয়ারও ক্ষমতা রয়েছে। সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্ততিতে তৈরি হয়েছে লংমার্চ ৫বি। নেক্সট জেনারেশন রকেট বলেও দাবি করা হয়েছে। 

আরও পড়ুনঃ গ্রুপ চ্যাটে ছাত্রীকে গণধর্ষণের পরিকল্পনা, দিল্লিতে গ্রেফতার পড়ুয়া ...