সাংহাই কো-অপারেশন অর্গানাইজেশনের বৈঠকে যোগ দিতে এখন রাশিয়ায় রয়েছেন ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। এই বৈঠকে যে চিনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী থাকবেন তা আগেই জানতেন রাজনাথ। তবে গত চার মাস ধরে লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় উত্তেজনার জন্য সরাসরি চিনকেই দায়ি করে আসছে নয়াদিল্লি। সম্প্রতি নতুন করে পূর্ব লাদাখে জোর সীমান্ত-সংঘাতে জড়িয়েছে চিন। সীমান্তে একের পর এক উস্কানিমূলক কাজ চালানোর অভিযোগ আসছে লালফৌজের বিরুদ্ধে। সেনা পর্যায়ের বৈঠকে মীমাংসার বদলে জারি রয়েছে বেজিংয়ের টালবাহানা। এই অবস্থায় রাশিয়ায় চিনের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে বসতে ভারত আগ্রহী নয় তা আগেই স্পষ্ট করে দিয়েছিল দিল্লি। কিন্তু এবার লাদাখ সংঘাতের কারণে আর্ন্তজাতিক চাপে পড়ে মাথা নোয়াতে শুরু করল জিনপিং প্রশাসন।

আরও পড়ুন: লাদাখে উত্তেজনা বাড়তেই ফের ভারতের পাশে আমেরিকা, চিনকে 'যুদ্ধবাজ প্রতিবেশী' বলে কটাক্ষ পম্পেওর

সাংহাই কো-অপারেশন অর্গানাইজেশনের বৈঠকে যোগ দিতে এখন চিনের প্রতিরক্ষামন্ত্রীও রাশিয়ায় রয়েছেন। সাংহাই মিটের বাইরে তিনি আলাদা করে রাজনাথের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করতে চান বলে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। এই মর্মে রাজনাথকে প্রস্তাবও দেওয়া হয়েছে বলে খবর। যদিও, ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রীর তরফে এই বিষয়ে এখনও আগ্রহ প্রকাশ করা হয়নি। সীমান্ত ইস্যুতে চিনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রক আগেও কয়েক বার বৈঠক করতে চেয়েছে। গত মে মাসে সংঘাত শুরু হওয়ার পর থেকে এই নিয়ে তৃতীয় বার তারা ভারতের কাছে বৈঠকের আর্জি পেশ করল বেজিং।

এদিকে রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে বৃহস্পতিবারই এক বিশেষ বৈঠকে বসেন রাজনাথ সিং। সেখানে ভারতের প্রতিরক্ষা বিষয়ক কূটনীতিকরাও হাজির ছিলেন। ভারত ও রাশিয়ার যৌথ সেনা মহড়ার পাশপাাশি এই বৈঠক লাদাখ সংঘাতের নিয়েও আলোচনা হয়।  রাজনাথ সিংয়ের সঙ্গে রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রীর বৈঠকে পাকিস্তানকে সামরিক অস্ত্র দেবে না বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে পুতিনের দেশ।

আরও পড়ুন: ফের চিনের অনুপ্রবেশের চেষ্টা ব্যর্থ, দক্ষিণ প্যাংগং লেকের সব পোস্টের দখল ভারতীয় বাহিনীর হাতেই

এদিকে রাশিয়ায় অনুষ্ঠিত  সাংহাই কো-অপারেশন অর্গানাইজেশনের বৈঠকে  ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং ও  চিনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী ওয়েই ফেং ছাড়াও অংশ নিয়েছে কাজাখস্তান, তাজাকিস্তান, পাকিস্তান, কিরঘিজস্তান সহ একাধিক দেশ। সন্ত্রাস দমন সহ ওকাধিক নিরাপত্তা ও প্রতিরক্ষা বিষয়ক ইস্যু এখানে আলোচিত হচ্ছে । এই বৈঠকে অংশ নিতেই  আগামী সপ্তাহে রাশিয়ায় যাচ্ছেন বিদেশমন্ত্রী জয়শংকর। তার আগে তিনি বলেন,  ভারত ও চিনকে কোনও ভাবে একটা সমঝোতা করতে হবে ও সেটা কূটনীতির মাধ্যমেই সম্ভব।  এদিকে বৃহস্পতিবার ভারতের বিদেশ মন্ত্রক  স্পষ্ট জানিয়েছে, গত চার মাস ধরে লাদাখে যে পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে সে জন্য দায়ি চিন। 

শুক্রবার ব্রিকস রাষ্ট্রগুলির বিদেশমন্ত্রীদের ভার্চুয়াল বৈঠক রয়েছে। সেখানে চিনা বিদেশমন্ত্রীর সঙ্গে কথা' হবে জয়শংকরের। তবে দু'জনের সামনা সামনি দেখা হবে রাশিয়ায়। সেখানে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক হবে কিনা, সেই নিয়ে কিছু বলেননি  জয়শংকর।