মাউন্ট এভারেস্ট। বিশ্বের সর্বোচ্চ পর্বতচূড়া। ১৬৫ বছর আগে দীর্ঘ কয়েক বছরের পরিশ্রমে এই পর্বত শিখরের উচ্চতা গণনা করেছিলেন বাঙালি গণিতবিদ রাধানাথ শিকদার। দুর্ভাগ্য, তিনি মাপলেও পর্বতচূড়াটির নামকরণ করা হয়েছিল তাঁর উপওয়ালা এভারেস্ট সাহেবের নামে। এতদিন পর আবারও মাপা হল সেই পর্বতচূড়ার উচ্চতা। দেখা গেল এত বছরে বেশ কিছুটা লম্বা হয়েছে মাউন্ট এভারেস্ট।

গত প্রায় এক বছর ধরে এভারেস্টের উচ্চতা নিয়ে বিতর্ক চলছিল চিন ও নেপালের মধ্যে। মঙ্গলবার সেই বিতর্কের অবসান ঘটিয়ে দুইদেশ এক যৌথ বিবৃতিতে ঘোষণা করেছে বিশ্বের সর্বোচ্চ পাহাড় চূড়ার উচ্চতা এখন ৮৮৪৮.৮৬ মিটার। রাধানাথ শিকদারের গণনা অনুযায়ী এতদিন এভারেস্টের উচ্চতা ধকরা হতো ৮৮৪৮ মিটার। অর্থাৎ, মাউন্ট এভারেস্ট ১৬৫ বছরে ০.৮৬ মিটার বা ৮৬ সেন্টিমিটার লম্বা হয়েছে।

আরও পড়ুন - বিশ্বের প্রথম কোভিড টিকা পেলেন ৯০ বছরের দিদিমা, তারপরই উইলিয়াম শেক্সপিয়ার

আরও পড়ুন - বাংলাদেশ কি চলে যাবে ইসলামি চরমপন্থীদের হাতে - ভয় ধরাচ্ছে হেফাজত-এ-ইসলাম, দেখুন ছবিতে ছবিতে

আরও পড়ুন - ম্যাক্রঁ-র সঙ্গে হাত মেলালেন মোদী, ইসলামি বিশ্বে বিদ্বেষের মধ্যেই ভারত দিল আশ্বাস

নতুন উচ্চতা পরিমাপের প্রক্রিয়াটি শুরু হয়েছিল গত বছর। ২০১৯ সালে চিনা রাষ্ট্রপতি শি জিনপিং সরকারী সফরে এসেছিলেন নেপালে। সেইসময়ই দুই দেশ এই বিষয়ে যৌথ উদ্য়োগ নিয়েছিল। এদিন নেপাল ও চিনের বিদেশমন্ত্রী, যথাক্রমে প্রদীপ গাওয়ালি এবং ওয়াং ই যৌথ বিবৃতি দিয়ে নতুন উচ্চতার কথা জানান। গাওয়ালি বলেন, সমগ্র বিশ্বের জন্যই এটা একটা ঐতিহাসিক মুহূর্ত। এই কাজে সহযোগিতার জন্য চিন সরকারকে ধন্যবাদ দিয়েছেন তিনি।

উচ্চতা মাপার পরও প্রাপ্য সম্মান পাননি রাধানাথ শিকদার। পরাধীন দেশে তা সম্ভব ছিল না। তবে উচ্চতা পরিমাপক হিসাবে ইতিহাসে জ্বলজ্বল করছে তাঁর নাম। মঙ্গলবারের পর তাঁর মাপা উতচ্চতা হয়তো আর গ্রাহ্। করা হবে না, কিন্তু তাঁর গণনা এবং তাঁর নাম ইতিহাস থেকে মুছে ফেল যাবে না।