Asianet News BanglaAsianet News Bangla

পাকিস্তান তাদের দ্বিতীয় আশ্রয়, সাংবাদিক ডেকে খুল্লামখুল্লা ঘোষণা তালিবানদের

তালিবান মুখপাত্র জাবিহুল্লাহ মুজাহিদ জানিয়ে দেন তালিবান ও পাকিস্তান উভয়ের মধ্যেই সম্পর্ক বেশ ঘনিষ্ঠ। তাদের সংগঠনের কাছে তাই পাকিস্তান দ্বিতীয় আশ্রয়।

Pakistan is like second home, Taliban spokesperson admits close ties with Islamabad bpsb
Author
Kolkata, First Published Aug 26, 2021, 5:09 PM IST
  • Facebook
  • Twitter
  • Whatsapp

পাকিস্তান (Pakistan) তাদের সেকেন্ড হোম (second home)। কোনও রাখঢাক না করেই পরিষ্কার জানিয়ে দিল তালিবানরা (Taliban)। বৃহস্পতিবার এক সাংবাদিক বৈঠকে তালিবান মুখপাত্র (Taliban spokesperson) জাবিহুল্লাহ মুজাহিদ (Zabihullah Mujahid) জানিয়ে দেন তালিবান ও পাকিস্তান উভয়ের মধ্যেই সম্পর্ক বেশ ঘনিষ্ঠ। তাদের সংগঠনের কাছে তাই পাকিস্তান দ্বিতীয় আশ্রয়।  

পাক সংবাদ মাধ্যম ARY News-কে দেওয়া তথ্যে এমনই জানিয়েছেন জাবিহুল্লাহ। এদিন তালিবানদের পক্ষ থেকে পরিষ্কার জানিয়ে দেওয়া হয়েছে তালিবানরা এমন কোনও কাজ করবে না বা কোনও কাজকে প্রশ্রয় দেবে না, যা ইসলামাবাদের স্বার্থ বিরোধী। কারণ আফগানিস্তান ও পাকিস্তানের সীমানা এক, দেশের মানুষের ধর্ম এক। দুই দেশের সংস্কৃতির মধ্যে মিল রয়েছে অনেক। তাই পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্ক আরও গাঢ় করতে চায় তালিবানরা। 

তালিবান মুখপাত্র এদিন বলেন এই ভারতীয় উপমহাদেশের সব দেশের সঙ্গেই ভালো সম্পর্ক রাখতে চায় তারা। ভারতের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখতে চায়। কিন্তু আফগানিস্তানের মাটি ব্যবহার করে কোনও দেশকে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করতে দেওয়া হবে না। 

বাড়ি বাড়ি ঢুকে বিয়ে করার জন্য মেয়ে খুঁজছে তালিবান, শিউরে ওঠা অভিজ্ঞতা মহিলা সাংবাদিকের

বড়সড় ধাক্কা তালিবানদের, আফগানিস্তানে আর্থিক সাহায্য দেওয়া বন্ধ করল ওয়ার্ল্ড ব্যাঙ্ক

তালিবানদের নিয়ে কাশ্মীর দখল করার ছক, দেখুন কীভাবে প্রশিক্ষণ চলছে পাকিস্তানে

যদিও তালিবানদের সঙ্গে পাকিস্তানের সম্পর্ক যে গভীর, তার ইঙ্গিত এর আগেও মিলেছিল। তালিবানরা ইতিমধ্যেই আফগান সেনার অস্ত্রাগারের দখল নিয়েছে। একই সঙ্গে মার্কিন সেনা বাহিনীর কিছু অস্ত্রও লুঠ করছে। বর্তমানে তাঁদের হাতে আমেরিকার তৈরি বিপুল অস্ত্রের সম্ভার রয়েছে। সেই অস্ত্রগুলি প্রথমে পাকিস্তানে পাঠান হতে পারে বলেও আশঙ্কা করা হয়েছে। পাকিস্তানের গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই (ISI)এর মাধ্যমে সেগুলি পাক জঙ্গি সংগঠনের হাতে পৌছে যাবে। তারপরই সেই অস্ত্রগুলি ভারতে পাঠিয়ে দেওয়া হবে পাকিস্তানের মদতে এখনও এদেশের মাটিতে যেসব জঙ্গি সংগঠন সক্রিয় রয়েছে তাদের হাতে। এমনই জানিয়ে ছিলেন ভারতীয় গোয়েন্দারা। 

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios