করোনা ভাইরাসের আতঙ্কের মধ্যেই  চিনে আটকে পড়া ভারতীয় ছাত্রদের দেশে ফিরিয়ে আনছে মোদী সরকার। শনি ও রবিবার উহানে আটকে পড়া ভারতীয়দের এয়ার ইন্ডিয়ার বিশেষ বিমানে দিল্লি ফিরিয়ে আনা হয়। চিন থেকে আগত ভারতীয়দের বিশেষ পর্যবেক্ষণে রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে। কেবল ভারত নয় প্রতিবেশী বাংলাদেশ সহ অন্যান্য দেশের প্রশাসনও চিন থেকে নিজেদের ছাত্রদের নিজের দেশে ফিরিয়ে আনতে উদ্যোগ নিয়েছে। কেবল হেলদোল নেই পাকিস্তানের ইমরান প্রশাসনের। 

আরও পড়ুন: করোনার পর এবার বার্ডফ্লু আতঙ্ক, হত্যা করা হল ১৮,০০০ মুরগিকে

করোনা ভাইরাসের উৎপত্তিস্থল উহানকে লক ডাউন করে দেওয়া হয়েছে। ফলে ফিরে আসার কোনও সুযোগ নেই সেখানে। সেই কারণেই বিভিন্ন দেশের পক্ষ থেকে নিজ নিজ উদ্যোগে তাদের ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এবিষেয় ভারত সহ অন্যান্য দেশ তৎপর হলেও ব্যকিক্রম কেবলই ইমরানের দেশ। চিনে আটকে পড়া পাকিস্তানি ছআত্রদের ফেরানোর কোনও উদ্যোগই নিচ্ছে না সে দেশের প্রশাসন। 

হুবেই প্রদেশের অকাধিক বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করছে পাকিস্তানের প্রায় আটশ পড়ুয়া। ভারতীয় ছাত্রদের দেশে ফেরা দেখে নিজের দেশের সরকারের কাছে সাহায্য প্রার্থনায় কাকুতি, মিনতি করছেন এই পাক ছাত্র-ছাত্রীরা। তবে তাতে ভ্রূক্ষেপ নেই ইমরান সরকারের। উল্টে এমন সিদ্ধান্তের পিছনে যুক্তি দিচ্ছেন তারা। চিনে পাকিস্তানি রাষ্ট্রদূত নাঘমানা হাশমি যুক্তি দিয়েছেন, পাকিস্তানে চিনা ভাইরাস সংক্রমণের চিকিৎসার পরিকাঠামো নেই। তাই চিনেই থাতুক পাক পড়ুয়ারা। পাক সরকারের এমংন সিদ্ধান্তে একেবারে হতবাক চিনে আটকে পড়া সেদেশর ছাত্ররা।

আরও পড়ুন: করোনা আতঙ্কের মাঝে পরিণতি পেল ভালবাসা, চিন থেকে এসে সত্যর্থকে বিয়ে করলেন জিহাও

সম্প্রতি এক পাক ছাত্রের মিনতি ভরা এমন এক ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। যেখানে ওই পাকিস্তানি ছাত্র দেখাচ্ছেন, ভারতীয় পড়ুয়াদের দেশে ফেরাতে উহান বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিশেষ বাসে করে এয়ারপোর্টের দিকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। আর তা দেখে সেই পাকিস্তানি পড়ুয়া নিজের দেশের সারকারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিচ্ছেন। পাক পড়ুয়াকে বলতে শোনা যাচ্ছে, " বাংলাদেশি পড়ুয়াদেরও কিছুক্ষণের মধ্যেই দেশে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া হবে। বাদ রয়ে গেলাম কেবল আমরা পাকিস্তানিরাই। আমারা মরে গেলেও সরকার আমাদের ফেরাবে না। পাকিস্তানের সরকারের লজ্জা হওয়া উচিক। ভারতের কাছে শিক্ষা নিন।"

 

 

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া আরেকটি ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, এক পাকিস্তানি ছাত্র দাবি করছেন, ইতিমধ্যে চির পাকিস্তানি পড়ুয়া করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। পাকিস্তানে পরিবার ও স্বজনেরা আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন। তাই পাকিস্তান সরকারের কাছে শীঘ্র ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়ার অনুরোধ জানাচ্ছেন তারা। 

তবে এত কাকুতি- মিনতির পরেও পাক পড়ুয়াদের ফেরানো হবে না বলে জানিয়ে দিয়েছেন জাতীয় স্বাস্থ্য পিরষেবায় নিয়োজিত পাক প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ডাক্টর জাফর মির্জা। বৃহত্তর স্বার্থেক কথা ভেবেই পাক পড়ুয়াদের ফেরানো হচ্ছে না বলে জানাচ্ছেন তিনি।