সুদানের রাজধানী খার্তুমের আল কুরেশি চিড়িয়াখানায় থাকা সিংহদের অবস্থা দেখে আঁতকে উঠবেন যে কেউ। না আছে পেট ভরে খাবার, না আছে কোনও চিকিৎসা ব্যবস্থা। দীর্ঘ দিনমের অর্ধাহার ও অনাহারে অপুষ্টির শিকার পশুরাজ। দুর্বল শরীরে বাসা বেঁধেছে নানা রোগ। নিজের পায়ে উঠে দাঁড়ানোরও ক্ষমতা নেই পশুরাজের । নিস্তেজ শরীরে অকালবার্ধক্যের থাবা বসেছে আফ্রিকান লায়নদের শরীরে।

 

চিড়িয়াখানায় থাকা পাঁচটি সিংহের সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়তেই তুফান উঠেছে বিশ্বজুড়ে। পশুগুলির সঠিক খাদ্য ও পরিষেবার দাবি তলছেন নেটিজেনরা। ইতিমধ্যে তাদের বাঁচাতে শুরু হয়েছে প্রচারও। 

আরও পড়ুন: ভূমিকম্প কেঁপে উঠল হলিউড, এপিসেন্টার গ্রানাডা হিল

পাঁচটি সিংহ ও সিংহীতে এইভাবে খেতে না দেওয়ার ঘটনায় সকলেই অবাক। ফেসবুকে ওসমান সালিন নামের এক ব্যক্তি প্রথমে প্রকাশ করেন হাড্ডিসার সিংহগুলির ছবি। নিজেদের শরীরের দুই তৃতীয়াং ওজনই হারিয়ে ফেলেছে তারা। 

চিড়িয়াখানার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে খাবার অধিকাংশ দিনই পাওয়া যায় না। খনও নিজেদের টাকা থেকে খাবার কিনে আনেন চিড়িয়াখানার কর্মীরা। তাই দিয়ে পশুগুলির পুরো খাবার যোগাড় করা যায় না। 

আরও পড়ুন: চিন ছাড়িয়ে এবার মার্কিন মুলুকেও করোনা আতঙ্ক, জরুরি অবস্থা ঘোষণা নিয়ে বৈঠক হু-র

খার্তুমের এই  চিড়িয়াখানার একটি বড় অংশ প্রাইভেট ডোনারদের দানে চলে। বর্তমানে আর্থিক মন্দার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে সুদান। তাই পশুদের জন্য খাবার যোগাড় করা বেশ কঠিন হয়ে পড়েছে। 

 

তবে সোশ্যাল মিডিয়ায় সিংহগুলির করুণ দশা উঠে আসতেই বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে আর্থিক সাহায্য আসতে শুরু করেছে। চিকিৎসাও শুরু হয়েছে অসুস্থ সিংহগুলির।