শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় হাগিবিসের প্রভাবে জাপানের একাংশ ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে এক লক্ষ ১১ হাজার উদ্ধারকর্মীকে নিয়োগ করেছে জাপান প্রশাসন। সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সাহায্যের জন্য ভারত জাপানকে দুটি যুদ্ধ জাহাজ পাঠাচ্ছে বলে জানা গিয়েছে। নরেন্দ্র মোদী টুইটারে জানিয়েছেন, ' জাপানের সংকটের সময় ভারত সামরিকভাবে সাহায্য করতে প্রস্তুত। ভারতীয় নৌসেনার বেশ কিছু সদস্য বর্তমানে জাপানে আছে। তাঁরা উদ্ধারকাজে জাপানকে সাহায্য করতে পারলে খুশি হবেন। '

শনিবার শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় হাগিবিস আছড়ে পড়ার পরেই জাপানে তাণ্ডবলীলা শুরু করে। ঘর্ণিঝড়ের প্রভাবে ৩৭ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। ২০ জন নিখোঁজ রয়েছেন। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। প্রবল বৃষ্টিতে জাপানের বেশ কিছু অঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতি দেখা দিয়েছে। বুলেট ট্রেনের কিছু অংশ জলের তলায় চলে গিয়েছে। জাপানের প্রায় ৯২ হাজার পরিবার বিদ্যুতহীন অবস্থায় রয়েছে। জাপানের প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে জানানো হয়েছে, এক লক্ষ ২০ হাজার মানুষ জলবন্দি হয়ে পড়েছেন। জাপানে প্রায় ৩০ হাজার বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। যার মধ্যে বেশিরভাগ মেরামত করার মতো পরিস্থিতিতে নেই বলে জানা গিয়েছে। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ভূমিধসের খবর আসছে।  ধ্বংসস্তূপের নীচে বহু মানুষ আটকে পড়েছেন। খারাপ আবহাওয়ার জন্য বিপর্যস্ত অনেক এলাকায় এখনও উদ্ধারকর্মীরা পৌঁছতে পারছেন না। 

ঘূর্ণিঝড়ে লণ্ডভণ্ড জাপান, দেশজুড়ে শুধু মৃত্যুর হাহাকার

জাপানে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় হাগিবিস আঘাত হানার ফলে রাগবি বিশ্বকাপের তিনটি খেলা বাতিল করে দেওয়া হয়েছে। জাপানে হাকানে শহরে গত ৪৮ ঘণ্টায় রেকর্ড পরিমাণ বৃষ্টি হয়েছে। এই শহরে গত দুই দিনে তিন ফুটের বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছে বলে জাপানের আবহাওয়া দপ্তরের তরফে জানানো হয়েছে। জাপানের নাগানোর চিকুমা নদীর জল উপছে পড়ছে। বন্যার জল আবাসিক এলাকায় প্রবেশ করতে শুরু করেছে।