করোনাভাইরাস বর্তমানে পৃথিবীর ১৯০টিরও বেশি দেশে সংক্রমিত। ইউরোপ  ও আমেরিকার আধুনিক দেশগুলি এই মারণ ভাইরাসের সঙ্গে যুঝতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছে। ধীরে ধীরে আফ্রিকার দিকেও পা বাড়াতে শুরু করেছে কোভিড-১৯। এখনও পর্যন্ত এই মহাদেশের ২,৪০০ জনের শরীরে পাওয়া গিয়েছে এই মারণ ভাইরাস। মারা গিয়েছেন ৬০ জনেরও পরিস্থিতি। ধীরে ধীরে যে আফ্রিকার পরিস্থিতি উদ্বেগজনক হয়ে উঠছে তা মনে করিয়ে দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। 

আফ্রিকায় করোনা সংক্রমণের হারে একাবের উপরের দিকে রয়েছে রুয়ান্ডা। বর্তমানে এই দেশে কোভিড-১৯ ভাইরাসে আক্রান্ত কমপক্ষে ৪০ জন। পরিস্থিতি যাতে নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে না যায় তারজন্য আগাম সতর্কতা হিসাবে ২১ মার্চ থেকে দেশটিকে লকডাউন করে দিয়েছে  রুয়ান্ডা সরকার। আর সেই লকডাউন উপেক্ষা করে বাইরে বের হওয়ার মাশুল দিতে হল এক যুবককে। 

লকডাউনের জেরে কাজ নেই শ্রমিকদের, গরিব মানুষদের জন্য ১০০ কোটি অনুদান নীতিশের

করোনার থাবার পণ্ড জন্মিদনের পার্টি, বৃদ্ধকে ১০১ হাজার লাইক উপহার নেটিজেনদের

সাত পাকে বাধা সেই করোনা, বিয়ে পিছিয়ে সমাজকে বার্তা ২ আমলার

জানা যাচ্ছে, দেশটিতে লকডাউন চললেও তাতে পাত্তা না দিয়ে নায়বারাঙ্গো নদীতে মাছ ধরতে গিয়েছিলেন এক যুবক। কিন্তু দেশটির দক্ষিণপ্রান্তে অবস্থিত কামোনী অঞ্চলের বাসিন্দা ওই যুবকের আর বাড়ি ফেরা হয়নি। মাছ ধরতে গিয়ে সোজা কুমিরের পেটে চলে যান তিনি। 

কামোনীর মেয়র আলিস কেইটসি  জানিয়েছেন , ‘সরকারের নির্দেশ অমান্য করেই বেরিয়েছিলেন ওই ব্যক্তি। ভাইরাস সংক্রমণ রোধে সহযোগিতা না করা খুবই কম সংখ্যক লোকদের মধ্যে তিনি একজন।'

আফ্রিকার সবচেয়ে ছোট্ট দেশ রুয়ান্ডাতে জনসংখ্যা মাত্র ১ কোটি ১০ লক্ষ। কোভিড-১৯ রোগের প্রাদুর্ভাব বাড়তে থাকায় দেশটিকে বর্তমানে লকডাউন করে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সেদেশর সরকার। ।