চলতি বছর এপ্রিল মাসে ইস্টার সানডে-তে এক ভয়ঙ্কর জঙ্গি হামলার শিকার হয়েছিল দ্বীপরাষ্ট্র শ্রীলঙ্কা। সাত মাস আগের সেই হামলায় প্রাণ হারিয়েছিলেন ২৫০ জনেরও বেশি মানুষ। হামলার সেই ক্ষত এখনও দগদগে। তার মাঝেই নতুন নেতা বাছতে ভোটের লাইনে দাঁড়ালেন শ্রীলঙ্কার মানুষ।

 

 

দেশের অষ্টম প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে শনিবার  স্থানীয় সময় সকাল ৭টায় শুরু হয় ভোটগ্রহণ, চলে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। এবারের নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন মোট ৩৫ জন প্রার্থী। তবে মূল লড়াইয়ে রয়েছেন ক্ষমতাসীন ইউনাইটেড ন্যাশনাল পার্টি-র প্রার্থী সাজিথ প্রেমাদাসা এবং বিরোধী দল শ্রীলঙ্কা পিপলস ফ্রন্টের গোটাবায়া রাজাপক্ষে। এবারের নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন না প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা শিরিসেনা। 

 

 

২০০৯ সালে দীর্ঘসময় ধরে চলা শ্রীলঙ্কার গৃহযুদ্ধের অবসান হয়, তারপর এটি তৃতীয় সাধারণ নির্বাচন। এবার নিবন্ধিত ভোটারের সংখ্যা ১ কোটি ৬০ লক্ষ। মুসলিম  ও তামিল ভোটাররা এবারে নির্বাচনের ফলাফলের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেবে বলে মনে করা হচ্ছে। 

এদিকে নির্বাচন শুরুর কয়েক ঘণ্টা আগেই ভোটারদের উপর হামলার অভিযোগ উঠল দ্বীপরাষ্ট্রে। দেশটির উত্তর-পশ্চিমের তান্তিরিমালে এই হামলা চালান হয়েছে বলে জানা গেছে। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, হামলাকারীরা রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে ১০০টি বাসের কনভয়ে আটকানোর চেষ্টা করে। এরপরেই গুলি চালাতে থাকে। দুটি বাসে একাধিক গুলি লাগলেও তাৎক্ষনিক হতাহতের কোনও খবর পাওয়া যায়নি।