করোনা সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে দিয়ে মারাত্মক বিপর্যয় ডেকে এনেছে চিন। এই মারণ ভাইরাসের প্রকোপ থেকে এখনও রেহাই পায়নি বিশ্ববাসী। এর মধ্যেই এবার চিনে হানা দিল প্রাণঘাতী বিউবনিক প্লেগ।

এবার চিনের উত্তর ভাগে বিউবনিক প্লেগ  ছড়িয়ে পড়ার ঘটনা সামনে এসেছে। এখনই যথাযথ পদক্ষেপ না নিলে এই রোগ মহামারির আকার নিতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। প্লেগ দেখা দেওয়ায় রবিবার তড়িঘড়ি সতর্কবার্তা জারি করেছে চিন সরকার।

আরও পড়ুন: করোনা নিয়ে তথ্য গোপন করেছে চিন, বন্ধু 'হু'-এর স্বীকারোক্তিতে এবার চাপে জিনপিং সরকার

স্বায়ত্তশাসিত ইনার মঙ্গোলিয়া অঞ্চলের বায়ানুর শহরে প্লেগ প্রতিরোধে তৃতীয় মাত্রার সতর্কতা জারি করা হয়েছে বলে জানিয়েছে চিনের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম পিপলস ডেইলি। গত শনিবার বায়ানুরের একটি হাসপাতালে বিউবনিক প্লেগ রোগী শনাক্তের পরপরই এই সিদ্ধান্ত নেয় চিন সরকার। চলতি বছরের শেষ পর্যন্ত এই সতর্কতা থাকবে বলে জানিয়েছে স্থানীয় স্বাস্থ্য দফতর।

চিনের স্বাস্থ্য দফতরের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, 'বর্তমানে বায়ানুর শহরে প্লেগ রোগ মহামারির আকার নেওয়ার মতো আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে সাধারণ মানুষকে আত্মসুরক্ষায় তৎপর এবং সচেতন থাকতে হবে। পাশাপাশি স্বাস্থ্য বিষয়ে কোনো অস্বাভাবিক ঘটনা ঘটলে সঙ্গে সঙ্গে তা স্থানীয় স্বাস্থ্য কেন্দ্র বা সংশ্লিষ্ট সরকারি অফিসে জানাতে হবে।'

আরও পড়ুন: রাষ্ট্রসংঘে ভারতের বিরুদ্ধে প্যাঁচ কষার চেষ্টা চিনের, রুখে দাঁড়াল আমেরিকা ও জার্মানি

গত ১ জুলাই চিনের রাষ্ট্রীয় বার্তাসংস্থা শিনহুয়া জানিয়েছিল, দেশটির পশ্চিম মঙ্গোলিয়ার খোভদ প্রদেশে দুইজন বিউবোনিক প্লেগে আক্রান্ত হয়েছেন। ল্যাব টেস্টে বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছে। প্লেগে আক্রান্ত ওই দু'জন ভাই এবং তারা মারমোটের (ইঁদুরজাতীয় প্রাণী) মাংস খেয়েছিলেন। এই  কারণে চিনা নাগরিকদের  এই  প্রাণী শিকার থেকে বিরত থাকার পরামর্শ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। আক্রান্তদের সংস্পর্শে আসা ১৪৬ জনকে চিহ্নিত করে ইতিমধ্যে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে।