করোনা ভাইকরাসের  নাজেহাল চিন। আক্রান্তের সংখ্যা ৯০ হাজারের বেশি। মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়ে গেছে তিন হাজারের গণ্ডী। এর মধ্যেই এক নতুন সমস্যা দেখা দিয়েছে চিনাভূমিতে। গত তিন সপ্তাহে ৩০০ বেশি ডিভোর্সের আবেদন জমা পড়েছে সেই দেশে এক রেজিস্ট্রারের কাছে। দেশে বেড়ে যাওয়া বিবাহবিচ্ছেদের আবেদনের জন্য করোনা ভাইরাসকেই দায়ি করছেন সেই দেশের প্রশাসন।

চিনের গোটা মূল ভূখণ্ড জুড়ে করোনা সংক্রমণ ঘটেছে। এই পরিস্থিতিতে দেশবাসীকে বাড়িতে থাকার পরামর্শ দিয়েছে চিন সরকার। ফলে বাড়িতে বেশিক্ষণ সময় একসঙ্গে কাটাতে পারছেন চিনা দম্পতিরা। সেই কারণেই বিবাহ বিচ্ছেদের ঘটনা বাড়ছে বলে  মনে করছেন আধিকারিকরা।

আরও পড়ুন: রাজ্যসভায় এবার দেশের প্রাক্তন প্রধান বিচারপতি, বিতর্ক উস্কে মনোনয়ন দিলেন রাষ্ট্রপতি

দক্ষিণ-পশ্চিম চিনের সিচুয়ান প্রদেশে দাঝৌয়ের ম্যারেজ রেজিস্ট্রার ম্যানেজারের কাছে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে জমা পড়েছে ৩০০ বেশি ডিভোর্সের আবেদন। ম্যারেজ রেজিস্ট্রার ম্যানেজার লু শিজনের  জানিয়েছেন এর আগে এতো ডিভোর্সের ঘটনা তিনি সেখানে দেখেননি। 

অন্যদিকে শি'আনের একটি রেজিস্ট্রি অফিসে একদিমে জমা পড়েছে ১৪টি ডিভোর্সের আবেদন। এভাবে বেড়ে চলা বিবাহবিচ্ছেদের হার দেখে আতঙ্কিত চিনের একটি রেজিস্ট্রি অফিস জানিয়ে দিয়েছে, দিনে ১০টির বেশি আবেদন তারা জমা নেবে না। 

আরও পড়ুন: দু'জনে সংসার করেছেন ৬০ বছর, করোনা আক্রান্ত হয়ে একসঙ্গেই মৃত্যু দম্পতির

চিনে করোনা ভাইরাস ব্যাপক ভাবে ছড়িয়ে পড়ায় দেশবাসীকে নিজেদের বাড়িতে আইসোলেশনে থাকার পরামর্শ দিয়েছে চিনা সরকার। আর তার ফলেই করোনার কোয়ারেনটাইনে দীর্ঘ সময়ে অকসঙ্গে কাটাচ্ছেন চিনা দম্পতিরা। আর সেই নৈকট্যই হয়ে দাঁড়াচ্ছে দাম্পত্যে চরম অশান্তির কারণ। দিনের শেষে দেখা হওয়া, আর সর্বক্ষণ পাশাপাশি থাকা যে এক ব্যাপার নয়, তা হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছেন চিনা দম্পতিরা।