Asianet News Bangla

বন্ধ সব সেক্স ক্লাব, 'করোনা-আতঙ্কে' লম্বা লাইন গাঁজা-চরসের দোকানের বাইরে

নভেল করোনভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে জারি কঠোর বিধিনিষেধ

ঝাঁপ বন্ধ বিশ্বখ্যাত সেক্স ক্লাবগুলির

লম্বা লাইন পড়ল গাঁজা-চরসের দোকানের সামনে

রবিবার এই ছবিই দেখা গেল করোনাভাইরাস আক্রান্ত আমস্টারডাম-এ

 

Amsterdam adult clubs shut, long queue outside marijuana coffee shops due to Coronavirus outbreak
Author
Kolkata, First Published Mar 16, 2020, 3:05 PM IST
  • Facebook
  • Twitter
  • Whatsapp

নভেল করোনভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করেছে নেদারল্যান্ডস সরকার। আর তারপরই রবিবার ঝাঁপ বন্ধ হল আমস্টারডাম-এর 'রেড লাইট ডিস্ট্রিক্ট'-এর বিশ্বখ্যাত সেক্স ক্লাবগুলি। একসঙ্গে বিপুল মানুষের জমায়েত নিষিদ্ধ করা হলেও লম্বা লাইন পড়ল মারিজুয়ানা 'কফি শপস'-এর বাইরে। আবার কবে খুলবে, তার কোনও নিশ্চয়তা নেই যে।

আরও পড়ুন - নির্ভয়াকাণ্ডের আসামিরাও কি কোভিড-১৯ আক্রান্ত, তিহার-এ নেওয়া হল বিশেষ ব্যবস্থা

ডাচ সরকার রবিবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে আগামি ৬ এপ্রিল তারিখ পর্যন্ত নেদারল্যান্ডস-এর সমস্ত রেস্তোঁরা, ক্যাফে, সিনেমা হল এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রী আরি স্লব আলাদা করে জানিয়েছেন, এই নিষেধাজ্ঞার আওতায় গাঁজা-চরস বিক্রি করার জন্য বিখ্যাত ডাচ বারগুলি এবং বিখ্যাত স্ট্রিপ ক্লাবগুলি, যেগুলির আকর্ষণে সারা পৃথিবী থেকে মানুষ আসেন সেগুলিও পড়ছে। রবিবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টা অর্থাৎ ভারতীয় সময় রাত সাড়ে দশটা থেকে এই সব ক্লাবগুলিতে গ্রাহক পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

'রেড লাইট ডিস্ট্রিক্ট'-এর যৌন উদ্দীপনামূলক নাচ, প্রাপ্তবয়স্ক ক্লাব এবং পতিতালয়গুলির আকর্ষণে প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ পর্যটক আসেন। লাল-আলোয় সাজানো কাঁচের জানলার ওপার থেকে অন্তর্বাসে সজ্জিত গনিকারা গ্রাহক ধরে। রবিবার রাতের পর থেকে সেই লাল আলোর জানলাগুলি রয়ে গিয়েছে, কিন্তু তার সামনে যৌনতার হাতছানি আর নেই। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে পুরোনো খাল বরাবর ছড়িয়ে থাকা 'কাসা রসো', 'পিপশো', 'ব্যানানা বার' এবং 'ইরোটিক মিউজিয়াম'-এর মতো বিশ্বখ্যাত প্রাপ্তবয়স্ক বিনোদন কেন্দ্রগুলি। তারা একযোগে জানিয়েছে, কর্মী ও অতিথিদের স্বাস্থ্যের স্বার্থে, এই মুহুর্তে এই কেন্দ্রগুলি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন - ভিডিওতেই দেখতে হল বাবার শেষকৃত্য, এখন মনে-প্রাণে চাইছেন যেন করোনা ধরা পড়ে

করোনাভাইরাস সংক্রমণ বিশ্বব্যপী মহামারীর আকার ধারণ করতেই বিশ্বজুড়ে এখন ফেস মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার-এর ব্যাপক চাহিদা। পৃথিবীর প্রায় সর্বত্রই ওষুধের দোকানের বাইরে লম্বা লাইন পড়ছে এই দুটি জিনিস সংগ্রহের জন্য। কিন্তু আমস্টারডামে রবিবার বন্ধের আগে গাঁজা-চরসের দোকানের সামনে লম্বা লাইন দেখা গেল। সকলেই, লকডাউনের সময় নেশার সামগ্রী মজুত করে রাখতে চাইছেন।

আরও পড়ুন - ভাইরাসের ভয়ের মধ্যেই বিকোচ্ছে কেজি প্রতি ২০০০ টাকায়, খাবেন নাকি 'করোনা' মাছ

আরও পড়ুন - সোমবার থেকেই শুরু হচ্ছে পরীক্ষা-নিরীক্ষা, গোপনে তৈরি করোনাভাইরাস-এর টিকা

রবিবার নেদারল্যান্ডসে নিশ্চিত করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা ১৬৬ জন বেড়ে ১,১৩৫ জনে পৌঁছেছে বলে জানিয়েছে ডাচ জাতীয় জনস্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট বা আরআইভিএম। ফুল শিল্পের উপ নেদাল্যান্ডস-এর অর্থনীতি অনেকটাই নির্ভরশীল। ফুলশিল্পের সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিরা জানিয়েছেন, এই সময়টা তাদের জন্য সাধারণত বছরের অন্যতম ব্যস্ত সময় হয়ে থাকে। কিন্তু এইবার একের পর এক অর্ডার বাতিল হওয়ার কারণে তাদের বিশাল ক্ষতির মুখে পড়তে হচ্ছে।

 

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios