জন্মেছিলেন ১৯০৩ সালে। গতবছরই বিশ্বের সবচেয়ে প্রবীণ ব্যক্তি হিসাবে গিনেস বুকে নাম তুলেছেন কানে তানাকা। সম্প্রতি জাপানের দক্ষিণর শহর খুকোকার একটি নার্সিংহমে নিজের ১১৭তম জন্মদিন পালন করলেন তিনি।

তানাকার জন্মদিন উপলক্ষে রিববার হাসপাতালেই আয়োজন করা হয়েছিল বিশেষ পার্টির। যেখানে হাজির ছিলেন তাঁর বন্ধু হাসপাতাল কর্মীরা। স্থানীয় টেলিভিশনেও সম্প্রচার করা হয় বিশ্বের সবচেয়ে জীবন্ত প্রবীণার জন্মদিন। 

 

 

গত ২ জানুয়ারি ছিল তানাকার জন্মদিন।  নিজের জন্মদিনের কেক কেটে তা চেখে বৃদ্ধার প্রতিক্রিয়া ছিল 'টেস্টি'। মুখে হাসি নিয়ে বললেন, কেকের আরও কিছুটা ভাগ তিনি চান। 

আরও পড়ুন : সপ্তাহে কাজের দিন কমে হচ্ছে ৪, করতে হবে ৬ ঘণ্টা কাজ, ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর

বিশ্বের সবচেয়ে প্রবীণ নারীর স্বীকৃতি গতবছরও অর্জন করেছেন তানাকা। ১৯২২ সালে এইদিকো তানাকার সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল তাঁর। দম্পতির চার সন্তানও ছিল। 

 

 

এখনও নিয়মিত সকাল ছটায় ওঠেন বিশ্বের সবচেয়ে প্রবীণা। নিয়মিত অঙ্কের চর্চাও করেন। তবে তানাকার আগে বিশ্বের সবচেয়ে  প্রবীণ ব্যক্তির রেকর্ড অর্জন করেছিলেন ফরাসি নাগরিক জেনি লুইস কার্লমেন্ট। বেঁচে ছইলেন ১২২ বছর। 

দেখুন ভিডিও : পুলিশের উদ্যোগ, দল বেঁধে পিকনিকে গেলেন প্রবীণ-প্রবীণারা

গিনেস বুকের দেওয়া তথ্য অনুয়ায়ী বিশ্বের সবচেয়ে প্রবীণ পুরুষ ছিলেন  মাসাজো নোনাকা। জাপানের হোক্কাইডো দ্বীপের বাসিন্দা মাসাজোর মৃত্যু হয় গত জানুয়ারিতে। সেই সময় তাঁর বয়স ছিল ১১৩ বছর।