প্রাথমিক ধাক্কা সামলে আইপিএল ফাইনালে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সকে লড়াই করার মত টার্গেট দিল দিল্লি ক্যাপিটালস। ২০ ওভারে ১৫৬ রান করল দিল্লি। সৌজন্যে অধিনায়ক শ্রেয়স আইয়র ও ঋষভ পন্থের জোড়া অর্ধশতরান। বল হাতে মুম্বইয়ের হয়ে তিন উইকেট নেন ট্রেন্ট বোল্ট। ফাইনালে টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন দিল্লি ক্যাপিটালসের অধিনায়ক শ্রেয়স আইয়র। কিন্তু শুরুটা ভাল হয়নি দিল্লির। প্রথম ওভারের প্রথম বলেই মার্কাস স্টয়নিসের উইকেট নেন ট্রেন্ট বোল্ট। এরপর তৃতীয় ওভারে দলের ১৬ রানের মাথায় দ্বিতীয় উইকেট পড়ে দিল্লির। বোল্টের শিকার হন অজিঙ্কে রাহানে। চতুর্থ ওভারে জয়ন্ত যাদবের বলে আউট হন শিখর ধওয়ান। তিনি করেন ১৫ রান। এরপর দিল্লির ইনিংসের রাশ ধরেন অধিনায়ক শ্রেয়স আইয়র ও ঋষভ পন্থ। ৬ ওভারের পাওয়ার প্লে শেষে স্কোর দাঁড়ায় ৪১ রানে ৩ উইকেট। 

পাওয়ার প্লের পর দিল্লির ইনিংসকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া ও পার্টনারশিপ গড়ার চেষ্টা করেন পন্থ ও শ্রেয়স। অধিনায়ক শ্রেয়স আইয়র একটু ধীরে খেললেও, অপরদিক থেকে নিজের আক্রমণাত্বক ইনিংস চালিয়ে যান ঋষভ পন্থ। বেশ কয়েকটি বাউন্ডারি, ওভার বাউন্ডারি মারেন তিনি। দলের রানের গতিবেগও বাড়ান দুই তারকা ব্যাটসম্যান। নিজেদের অর্ধশতরানের পার্টনারশিপও পূরণ করেন শ্রেয়স-পন্থ জুটি। ১০ ওভার শেষে দিল্লির স্কোর দাঁড়ায় ৩ উইকেটে ৭৫ রান। ১০ ওভারের পর নিজেদের পার্টনারশিপ চালিয়ে যান দুই তারকা। সুযোগ বুঝে আক্রমণেও যান তারা। ১৩ ওবার শেষে দিল্লির স্কোর দাঁড়ায় ৩ উইকেটে ৯৯। ১৪ তম ওভারে ১০০ রানের গন্ডী টপকায় দিল্লি। ১৫ তম ওভারে চার মেরে নিজের অর্ধশতরান পূরণ করেন ঋষভ পন্থ। ৩৫ বলে করেন হাফ সেঞ্চুরি। কিন্তু একই ওভারে ছক্কা মারতে গিয়ে কুল্টারনাইলের বলে আউট হন ঋষভ পন্থ। ৫৬ রান করেন তিনি। ১৫ ওভারে শেষ দিল্লির স্কোর দাঁড়ায় ৪ উইকেটে ১১৮। 

এরপর ক্রিজে আসেন শেমরন হেটমায়ার। ১৬ তম ওভারে আসে ৭ রান। ১৭ তম ওভারে নিজের অর্ধশতরান পূরণ করেন শ্রেয়স আইয়র। ৪০ বলে অর্ধশতরান দিল্লির অধিনায়ক। একইসঙ্গে ওভারে বুমরাকে দুটি চার মেরে রান রেটেও বাড়ান শ্রেয়স। ১৭ ওভার শেষে দিল্লির স্কোর দাঁড়ায় ৪ উইকেটে ১৩৬। কিন্তু ১৮ তম ওভারের শুরুতেই হেটমায়ারকে প্যাভেলিয়নে ফেরত পাঠান ট্রেন্ট বোল্ট। হেটমায়ার করেন ৫ রান। ওভার শেষে দিল্লির স্কোর ১৪২ রানে ৫ উইকেট। ১৯ তম ওভারে আঁটোসাটো বোলিং করেন বুমরা। দেন মাত্র ৬ রান। শেষ ওভারের প্রথম বলে কুল্টারনাইলের বলে আউট হন অ্যাক্স প্যাটেল। তিনি করেন ৯ রান। শেষ ওভার শ্রেয়স আইয়র একটি ছক্কা মারলে বেশি রান আসেনি। শেষ বলে রান আউটও হন রাবাডা। ২০ ওভার শেষে দিল্লির স্কোর দাঁড়ায় ১৫৬ রানে ৭ উইকেট। ৬৫ রান করে অপরাজিত থাকেন শ্রেয়স আইয়র। পঞ্চমবার ট্রফি জিততে মুম্বইয়ের টার্গেট ১৫৭ রান।