মরু শহরে আইপিএল ২০২০-র শুরুটা ভালো হল না কলকাতা নাইট রাইডার্সের। আইপিএলের ইতিহাসে মুম্বই বরাবরই কেকেআরের সামনে শক্ত গাঁট। আইপিএলের ১৩ তম সংস্করণে গতকালকের ম্যাচে মুখোমুখি হওয়ার আগে নাইট রাইডার্স মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে ২৫ বার মুখেমুখি হয়ে ১৯ বার হেরেছিল কলকাতা। এদিন আমিরশাহী আইপিএলে নাইটদের প্রথম ম্যাচে দীনেশ কার্তিকের দলকে হারিয়ে ব্যবধানটা আরও লজ্জাজনক করে দিল রোহিতের মুম্বই।

কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিরুদ্ধে বিধ্বংসী মেজাজে ফর্মে ফিরলেন মুম্বই ইন্ডিয়ান্স অধিনায়ক রোহিত শর্মা। আইপিএল ২০২০তে অভিযান শুরুর ম্যাচে চেন্নাইয়ের বিরুদ্ধে বড় রান পাননি হিটম্যান। সিএসকের বিরুদ্ধে মাত্র ১২ রানে আউট হয়েছিলেন। এদিন নাইট বোলারদের নিয়ে ছিনিমিনি খেলে ৩৯ বলে হাফ সেঞ্চুরি হাঁকালেন। পরে ৫৪ বলে ৮০ রান করে ক্রিজ ছাড়েন তিনি মুম্বই ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারটি ছিল উইকেট মেডেন। আউট হয়েছিলেন ডি কক। কিন্তু তাকে হারিয়েও দমে যাননি মুম্বাই অধিনায়ক। সূর্যকুমার যাদবের সাথে তৃতীয় উইকেটে গড়ে দেন ৯০ রানের পার্টনারশিপ। ম্যাচ ওখানেই তাদের দিকে ঘুরে যায়। 

নাইটদের ১৫.৫ কোটি টাকায় কেনা পেসার প্যাট কামিন্স আজ সুপার ফ্লপ। মাত্র তিন ওভারে ৪৯ রান দেন অজি বোলার। উল্টোদিকে মুম্বইয়ের সেরা বোলার যশপ্রীত বুমরার সাথে সাথে বোল্ট ও প্যাটিনসন জুটিও ছিল নিজেদের সেরা ফর্মে। উল্টোদিকে চুড়ান্ত হতাশ করেন নাইট ওপেনাররা। মরগ্যান এবং রাসেলকে দিয়ে তৈরি মিডল অর্ডারের ওপর অনেকটা আশা করে ছিলেন নাইট ভক্তরা। কিন্তু চূড়ান্ত হতাশ করেছেন তাঁরাও। সেই সঙ্গে থেমে গেছে নাইটদের একটি দুর্দান্ত রেকর্ড। ২০১৩ থেকে টানা আইপিএলের প্রথম ম্যাচ জিতে আসছিলেন নাইটরা। কাল সেই দৌড় শেষ হলো