গতকাল শেষ তিন ম্যাচে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের জয়ের মূল কারণ ঋদ্ধিমান সাহাকে ছাড়াই দল নামিয়েছিল হায়দরাবাদ। তার অনুপস্থিতিতে সুযোগ পান আর এক বঙ্গের উইকেটরক্ষক শ্রীবৎস গোস্বামী। টস করতে এসে ওয়ার্নার জানিয়ে যান চোট কাটিয়ে না উঠতে পারায় দলে নেই ঋদ্ধি। তবে তাকে ছাড়াও জয় তুলে নিতে অসুবিধা হল না হায়দরাবাদের। উইলিয়ামসন, হোল্ডারের দুর্দান্ত পারফরম্যান্স প্রথম এলিমিনেটরে জয় এনে দিল কমলা বাহিনীকে। 

আইপিএল হোক কিংবা আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট - সবক্ষেত্রেই ব্যাট হাতে বিপক্ষের বোলারদের ওপর ছড়ি ঘুরিয়েছেন ভারতীয় ক্রিকেটের পোস্টার বয় বিরাট কোহলি। মাঠে তাঁর আগ্রাসী ব্যাটিং ঘুম কেড়েছে বিপক্ষের বোলারদের। কিন্তু এই বছরটা মাঠে একেবারেই ভালো যাচ্ছে না তার। বছরের শুরুর দিকে নিউজিল্যান্ড সফরে পারফরম্যান্স ছিল সাদামাটা। আইপিএলেও সেই ধারা অব্যাহত রইলো।  

আইপিএলে দীর্ঘদিন ধরে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের অধিনায়কত্ব সামলাচ্ছেন বিরাট। তবে এখন পর্যন্ত একবারও ট্রফি জিততে পারেননি তিনি। ২০১৬ সালে শেষবার ফাইনালে খেলেছিলেন। তবে এবার বিরাট ফর্মে না থাকলেও পাড়িক্কল, এবি, সিরাজ চাহালরা দুর্দান্ত ফর্মে থাকায় কিছুটা আশা জেগেছিল বিরাট-বাহিনীর। কিন্তু গ্রুপ পর্বের শেষের দিকে অবশ্য একটানা চারটি ম্যাচে হারের মুখ দেখতে হয়েছিল। তা সত্ত্বেও প্লে-অফের টিকিট মিলেছিল। কিন্তু এলিমিনেটরে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিরুদ্ধেও গ্রূপ পর্বের শেষ দিকের পারফরম্যান্সই অব্যাহত থাকে ব্যাঙ্গালোরের। প্রথমে ব্যাট করে মাত্র ১৩১ রান তুলতে পারে তারা। দুর্দান্ত ফর্মে থাকা দেবদত্ত এদিন ব্যর্থ হন। ব্যাট হাতে এবি ডিভিলিয়ার্সের ৫৬ এবং অ্যারন ফিঞ্চের ৩২ ছাড়া আর কেউ দলকে ভরসা দিতে পারেননি। অসাধারণ বোলিং করেন হায়দরাবাদের ক্যারিবিয়ান অল-রাউন্ডার জেসন হোল্ডার। ব্যাট করতে নেমে দ্রুত প্রথম উইকেট হারায় সানরাইজার্স। এরপর ওয়ার্নার ও মনীশ পান্ডে দ্রুত ফিরলেও কেন উইলিয়ামসনের অপরাজিত ৫০ এবং জেসন হোল্ডারের অপরাজিত ২৪ রানে ভর করে ১৯.৪ ওভারেই জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় সানরাইজার্স। হোল্ডারের অলরাউন্ড পারফরম্যান্সই বদলে দেয় ম্যাচের রঙ