ভারতে ক্রিকেটের জনপ্রিয়তা নিয়ে আলাদা করে কিছু বলার প্রয়োজন হয় না। আট থেকে আশি সকলেই এখানে ক্রিকেটের ভক্ত। ভক্তরা ভালবাসেন তাদের পছন্দের ক্রিকেটারদের কাছাকাছি পৌঁছতে, তাদের অটোগ্রাফ নিতে, তাদের সাথে সেলফি তুলতে। ক্রিকেটাররাও তাদের নিজেদের অনুগত ভক্তদের সাধারণত নিরাশ করেন না। কিন্তু এইবার হয়তো ক্রিকেটার এবং ভক্তদের এই মধুর মিলন আর সম্ভবপর হবে না। সারা পৃথিবী জুড়ে ছড়িয়ে পড়া মূর্তিমান করোনা ভাইরাসের আতঙ্কের জেরে এবার নিরাপত্তা ব্যবস্থা হতে চলেছে অন্যান্যবারের তুলনায় অনেক বেশি আঁটোসাঁটো। 

ইতিমধ্যে ভারতেও করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে বেশ কিছু মানুষ। প্রায় ৪৩ জন মানুষকে শনাক্ত করা গেছে যারা নোবেল করোনার শিকার। বেশ কিছু ইতালিয়ান পর্যটকের শরীরেও পাওয়া গেছে এই মারণ ভাইরাস। স্বভাবতই প্রশ্ন উঠেছে তারা ভারতে প্রবেশের অনুমতি পেল কিভাবে।

সম্প্রতি শুরু হতে চলা দক্ষিণ আফ্রিকার ভারত সফর থেকেই ভক্ত এবং খেলোয়াড়দের কাছে আশায় পড়তে চলেছে অনেক বেশি নিষেধাজ্ঞা। দক্ষিণ আফ্রিকার তারকা ক্রিকেটার কুইন্টন ডি কক কিংবা ফ্যাফ দু প্লেসিস-দের কেও ভক্তদের সঙ্গে সেলফি তোলা কিংবা অটোগ্রাফ দেওয়ার ক্ষেত্রে বাঁধা নিষেধ গুলি বুঝিয়ে দেওয়া হবে। দক্ষিণ আফ্রিকার কোচ মার্ক বাউচার জানিয়েছেন সুরক্ষার জন্য সম্ভবত বিপক্ষের সাথে হাত মেলানোর ব্যাপারটিকেও আপাতত রদ করা হতে পারে। 

শুধুমাত্র দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজেই যে এই নিষেধাজ্ঞা বসতে চলেছে এমনটা কখনওই নয়। দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজের পরেই শুরু হতে চলেছে ভারতের সবচেয়ে জনপ্রিয় ক্রিকেট প্রতিযোগিতা ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ। ২৯ মার্চ থেকে শুরু হতে চলেছে এই প্রতিযোগিতা। অনেকে পরামর্শ দিয়েছে রুদ্ধদ্বার আইপিএল আয়োজনের। কারণ দেশের চিকিৎসকরা বার বার করে বলেছেন এক জায়গায় অনেক মানুষের জমায়েত থেকে দূরে থাকতে। টিভি এবং ডিজিটাল মঞ্চে খেলার সম্প্রচার আগের মতোই হতে থাকবে। কিন্তু রুদ্ধদ্বার আইপিএল আয়োজন করলে ক্ষতির মুখে পড়তে পারে ফ্রাঞ্চাইজিগুলি। টিকিট বিক্রির টাকা থেকে বঞ্চিত হতে পারে তারা। তাই তারা এই শর্তে রাজি হবে কিনা তা নিয়ে সন্দেহ থেকেই যায়। বিসিসিআইয়ের তরফ থেকে আইপিএল সংক্রান্ত বিশেষ নিয়মাবলী কিছুদিনের মধ্যেই প্রকাশ করা হবে বলে জানা গেছে। তার থেকেই সামগ্রিক চিত্রটি পরিস্কার হবে বলে জানা গেছে।