আজ আইপিএলে মুখোমুখি বিরাট কোহলিরর রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর ও কেএল রাহুলের কিংস ইলেভেন পঞ্জাব। তিন মরসুম পর জয় দিয়ে আইপিএল অভিযান শুরু করেছে আরসিবি। প্রথম ম্য়াচে সানররাইজার্স হায়দাবাদকে ১০ রানে হারিয়ে দেয় বিরাট কোহলির দল। ব্যাট হাতে দুরন্ত পারফর্ম করেন এবি ডিভিলিয়ার্স ও বল হাতে অনবদ্য যুজবেন্দ্র চাহল। অপরদিকে দিল্লি ক্যাপিটালসের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচে সুপার ওভারে হার শিকার করতে হয় কিংস ইলেভেন পঞ্জাবকে। মায়াঙ্ক আগরওয়াল ছাড়া দলের অন্য কোনও ব্য়াটসম্যান তেমন দাগ কাটতে পারেনি। দুরন্ত ইনিংস খেলেও দলকে জয় ওনে দিতে ব্যর্থ হয়েছিলেন মায়ঙ্ক। যদিও বল হাতে ভাল পারফর্ম করেছিলেন মহম্মদ শামি, শেলডন কটরেল ও রবি বিষ্ণোইরা। যদিও অ্যাম্পায়ের ভুল সিদ্ধান্তর শিকারও হতে হয় পঞ্জাবের দলকে। আম্পায়েরেরর এক রান কম দেওয়া নিয়ে চলছে বিতর্ক। এই পরিস্থিতিতে দ্বিতীয় ম্য়াচ জিতে জয়ের সরণিতে ফিরতে মরিয়া কোচ অনিল কুম্বলের দল।

এবারের রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর দল অনেক বেশি শক্তিশালী। প্রতি বিভাগেই রয়েছে একের পর এক ভাল প্লেয়ার। যদিও বোলিং বিভাগে পেস বোলিং লাইনআপ নিয়ে কিছু সমস্যা রেয়ছে। কারণ প্রথম ম্যাচে ছন্দে ছিলেন না উমেশ যাদব ও ডেল স্টেইন। একমাত্র জোড়ে বোলারদের মধ্যে নবদীপ সাইনি দুরন্ত বোলিং করেন। অপরদিকে স্পিনারদের মধ্যে দুরন্ত বোলিং করেন যুজবেন্দ্র চাহল। যদিও ব্যাটিং লাইন আপে দেবদূত পাড়িকল অভিষেকেই হাফ সেঞ্চুরি করে দলকে ভরসা জুগিয়েছেন। ফর্মে থকার ইঙ্গিত দিয়েছেন অ্যারন ফিঞ্চও। আর দুরন্ত ব্যাটিং করেছিলেন এবিডি। বিররাট নিজে রান না পেলেও, দ্বিতীয় ম্যাচে রানে ফিরতে মরিয়া তিনি। নিচের দিকে ব্যাটিং লাইনআপকে শক্তিশালী করতে রেয়ছেন শিবম দুবে, জোস ফিলিপে। প্রয়োজনে ক্ররিস মরিসকেও খেলাতে পারে আরসিবি। ফলে বোলিং লাইনআপ ছন্দে চলে আসলেই কোনও চিন্তা মুক্ত থাকবেন বিরাট কোহলি। কিন্তু প্রথম ম্যাচে জয় পেয়ে আত্মবিশ্বাস তুঙ্গে রয়েছে আরসিবির। 

অপরদিকে, কিংস ইলেভেন পঞ্জাব সুপার ওভারে হারের ঝটকা কাটিয়ে জয়ে ফিরতে মরিয়া হয়ে রয়েছেন। ব্যচিং লাইনআপের রানে ফেরার অপেক্ষায় রেয়ছে কোচ অনিল কুম্বলে। কারণ প্রথম ম্যাচে বোলারা দুরন্ত পারফরমেন্স করেছিলেন। মহম্মদ শামি ৩ উইকেট নিয়ে কার্যত আগুনে বোলিং করেছিলেন। এছাড়াও ২ উইকেট পেয়েছিলেন কটরেল ও এক উইকেট নিয়েছিলেন রবি বিষ্ণোই। নিজের অভিষেকেই বল হাতে নজর কেড়েছিলেন রবি। কিন্তু বোলিং লাইনআপে মায়াঙ্ক আগরওয়ালের ৮৯ রানের ইনিংস ছাড়া কেউই আর তেমন দাগ কাটতে পারেনি। অধিনায়ক কেএল রাহুল নিজে রানে ফেরার জন্য অপেক্ষায় রয়েছেন। করুণ নায়ার, ম্যাক্সওয়েল  ব্য়াটে রানের খরা নিয়ে কিছুটা চিন্তায় রয়েছে কিংস ইলেভেন টিম ম্যানেজমেন্ট। কিন্তু সব ভুল ত্রুটি শুধরে নিয়ে দ্বিতীয় ম্যাচে জয়ে ফিরে মরিয়া কিংসরা। 

ম্যাচ প্রেডিকশন- দুই দলের প্রথম ম্যাচের পারফরমেন্স ও ব্যাটিং ও বোলিং বিভাগে শক্তি বিচার বলাই যায় যে আজকের ম্যাচে বিরাট কোহলির আরসিবি জয়ী হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি।