প্রথমে অধিনায়ক রোহিত শর্মার অনবদ্য ৭০ রানের ইনিংস। শেষে কায়রন পোলার্ড ও হার্দিক পান্ডিয়ার তান্ডব। দুইয়ের সৌজন্যে আইপিএলের গুরুত্বপূর্ণ ম্য়াচে ১৯১ রান করল মুম্বই ইন্ডিয়ান্স। এদিন টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন কিংস ইলেভেন পঞ্জাব অধিনায়ক কেএল রাহুল। মুম্বইয়ের হয়ে ওপেন করে নেমে এদিনও নিরাশ করেন কুইন্টন ডিকক। প্রথম ওভারেই শেলডন কটরেলের বলে কোনও রান না করে আউট হন তিনি। এরপর নামেন সুর্যকুমার যাদব। তিনি রোহিত শর্মার সঙ্গে ইনিংস এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলেও, তার ভাগ্য সাথ দেননি। চতুর্থ ওভারে মাত্র ১০ রান করে রান আউট হয়ে যান তিনি। এরপর ক্রিজে আসেন গত ম্যাচের ট্র্যাজিক হিরো ইশান কিষাণ। রোহিত শর্মার সঙ্গে ইনিংসের রাশ ধরেন তিনি। অপরদিক থেকে একটু সামলে নিজের ইনিংস চালিয়ে যান রোহিত শর্মা। কমজুরি বল পেলে আক্রমণও করেন তিনি। প্রথম পাওয়ার প্লে ৬ ওভার সেষে মুম্বইয়ের স্কোর দাঁড়ায় ৪১ রানে ২ উইকেট।

পাওয়ার প্লের খুব একটা হিট করার সুযোগগ দিচ্ছিলেন না  কিংস ইলেভেনের বোলাররা। ধীর পার্টনারশিপ গড়ে ন তারা। ১০ ওভার শেষে মুম্বইয়ের স্কোর হয় ৬২ রানে দুই উইকেট। মাঝে আকক্রমণাত্ব হওয়ার চেষ্টা করলেও আঁটোসাটো বোলিং করেন কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের বোলাররা। এর মধ্যে অর্ধশতরানের পার্টনারশিপ পুরো করেন রোহিত শর্মা ও ইশান কিষাণ। ১৩ ওভার শেষে মুম্বইয়ের স্কোর দাঁড়ায় ৮৩ রানে ২ উইকেট। ১৪ ওভারের শুরুতেই মুম্বইয়ের তৃতীয় উইকেট পড়ে। কষ্ণাপ্পা গৌতমের বলে ২৮ রান করে আউট হন ইশান কিষাণ। ৮৩ রানে তৃতীয় উইকেট পড়ে মুম্বইয়ের। ১৫ তম ওভারে রবি বিষ্ণোইকে একটি করে ছয় মারেন রোহিত ও পোলার্ড। ১৫ ওভার শেষে মুম্বইয়ের স্কোর দাঁড়ায় ১০২ রানে ৩ উইকেট। 

১৬ তম ওভারের শুরুতেই অর্ধশতরান পূরণ করেন মুম্বই অধিনায়ক রোহিত শর্মা। ৪০ বলে পূরণ করেন হাফ সেঞ্চুরি। একইসঙ্গে বিধ্বংসী রূপ নেন তিনি। জিমি নিশামের ও ১৬ তম ওভারে আসে ২২ রান। ১৭ তম ওভারের শুরুতেই মহম্মদ আউট হন রোহিত শর্মা। মহম্মদ শামির বলে ৪৫ বলে ৭০ রান করে আউট হন তিনি। ১৭ ওভার শেষে স্কোর দাঁড়ায় ১৩০ রানে ৪ উইকেট। ১৮ তম ওভারেও জিমি নিশামের উপর আক্রমণ করেন হার্দিক পান্ডিয়া। রান আসে ১৮ রান। স্কোর দাঁড়ায় ১৪৭ রানে ৪ উইকেট। শামির ১৯ তম ওভারে শামির উপর আক্রমণ করেন হার্দিক ও পোলার্ড। আসে ১৯ রান। ১৯ ওভার শেষে মুম্বইয়ের স্কোর হয় ৪ উইকেট ১৬৬। শেষে ওভারেও ব্য়াটিং তান্ড বজায় রাখেন হার্দিক-পোলার্ড জুটি। শেষ ওভারে কৃষ্ণাপ্পা গৌতমের বলে আসে ২৫ রান। ২০ বলে ৪৭  ও ১১ বলে ৩০ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলেন পোলার্ড ও হার্দিক পান্ডিয়া। কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের টার্গেট ১৯২ রান।