আইপিএলের চতুর্থ ম্যাচে সঞ্জু স্যামসন ঝড়ের সাক্ষী থাকল ক্রিকেট বিশ্ব। এদিন শারজায় টসে জিতে প্রথমে ফিল্ডিং সিদ্ধান্ত নেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। রাজস্থান হয়ে ওপেন করতে নামেন অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ ও যশশ্বী জয়সওয়াল। যদিও শুরুতে উইকেট পায় সিএসকে। দীপক চাহারের বলে ৬ রানে আউট হন যশশ্বী জয়সওয়াল। তারপর ক্রিজে আসেন সঞ্জু স্যামসন। এসেই রুদ্রমূর্তি ধারণ করেন সঞ্জু স্যামসন। চারের থেকে বেশি ছয় মারেন সঞ্জু। তাকে যোগ্য সঙ্গ দেন অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ।

পাওয়ার প্লে-তে ৫৪ রান করেন রাজস্থান। এরপর ঝড়ের গতিবেগে রান করা শুরু করেন সঞ্জু। মাত্র ২০ বলেই অর্ধশতরান করে ফেলেন তিনি। সঞ্জু স্যামসন ও স্টিভ স্মিথের অনবদ্য ব্যাটিংয়ের সামনে অসহায় দেখায় পীযুষ চাওলা, রবীন্দ্র জাদেজা, দীপক চাহার, স্যাম কুরানদের।  ১০ ওভারের আগেই দলের শতরান ও নিজেদে শতরানের পার্চনারশিপও পূরণ করে পেলেন রাজস্থান রয়্যালসের দুই তারকা ব্যাটসম্যান। অবশেষে ১২ তম ওভারে ১৩২ রানের মাথায় লুঙ্গি এনগিডির বলে আউট হন সঞ্জু স্যামসন। ৩২ বলে ৭৪ রান করেন সঞ্জু স্যামসন। তার ইনিংস সাজানো ৯টি বিশাল ছক্কা ও মাত্র একটি চারে। দ্বিতীয় উইকেট পড়ার পর তৃতীয় উইকেট পেতে বেশি সময় অপেক্ষা করতে হয়নি ধোনিকে। একই ওভারে রান আউট হন ডেভিড মিলার। পরপর দুটি উইকেট পেয়ে কিছুটা ম্য়াচে ফেরে সিএসকে। ১৫ তম ওভারে আরও একটি একটি পড়ে রাজস্থানের। পীযুষ চাওলার বলে আউট রবিন উথাপ্পা। ১৫ ওভার শেষে রাজস্থানের স্কোর দাঁড়ায় ৪ উইকেটে ১৫৪।

অপরদিক থেকে নিজের ইনিংস চালিয়ে যান স্টিভ স্মিথ । অর্ধশতরানও পূরণ করেন তিনি। দায়িত্ব নিয়ে ব্য়াট করতে দেখা য়ায় তাকে। ১৭ তম ওভারে পঞ্চম উইকেটের পতন হয় রাজস্থানের। স্যাম কুরানের বলে আউট হন রাহুল তেওয়াটিয়া। একই ওভারে আরও একটি পড়ে। এবার স্য়াম কুরানের শিকার হন রিয়ান পরাগ। পরপর উইকেট হারিয়ে রানের গতিবেগ কিছুটা কমে রাজস্থানের। ১৯ তম ওভারে আরও একটি উইকেট পান স্যাম কুরান। এবার তার বলে আউট হন স্টিভ স্মিথ। ৪৭ বলে ৬৯ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। ১৯ ওভার শেষে রাজস্থানের স্কোর দাঁড়ায় ১৯ ওভারে ১৮৬। ২০ তম ওভারে পরপর এনগিডিকে পরপর চারটি ছয় মারেন জোফ্রা আর্চার। ২০ তম ওভারে আসে ৩০ রান। একইসঙ্গে ২১৬ রানে শেষ হয় রাজস্থান রয়্যালসের ইনিংস। চেন্নাই সামনে টার্গেট ২১৭ রানের।