আগেই আইপিএল-এর সূচি পিছিয়ে ১৫ই এপ্রিল থেকে আইপিএল শুরুর কথা ঘোষণা করেছিল বিসিসিআই। মঙ্গলবার আইপিএলের ৮ টি ফ্রাঞ্চাইজির সাথে বৈঠকে করার কথা ছিল বিসিসিআইয়ের। ফোনেই সেই বার্তালাপ শুরু হওয়ার কথা ছিল। করোনা ভাইরাসের সারা দেশ জুড়ে সংক্রমণের মধ্যে কিভাবে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে তা নিয়ে বৈঠকে বসার কথা ছিল তাদের। কিন্তু সেই বৈঠক আপাতত মুলতুবি রাখলো বিসিসিআই। 

আরও পড়নঃকরোনা ভাইরাস মোকাবিলায় ২৫ মিলিয়ন টাকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত ক্রিকেট বোর্ডের

এই মুহুর্তে ভারতে যা পরিস্থিতি তাতে এই তারকাখচিত ক্রিকেট লিগ এই মরশুমের জন্য বাতিল হয়ে গেলেও কিছু বলার থাকবে না। সারা ভারত জুড়ে দ্রুত বেড়ে চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। এই পরিস্থিতির মধ্যে এই লিগ আয়োজন করা উচিত কিনা তা নিয়েও উঠছে প্রশ্ন। সারা বিশ্ব জুড়ে এর মধ্যেই ১৬,০০০ মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন এই মারণ ভাইরাসের কবলে পড়ে। সারা ভারতে প্রায় ৫০০ মানুষ আক্রান্ত এই ভাইরাসের দ্বারা। ভারতে মৃত্যু হয়েছে ১০ জন মানুষের। 

আরও পড়ুনঃনিজের মেয়েকে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের প্রয়োজনীয়তা বললেন ওয়ার্নার, ভাইরাল ভিডিও

কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব দলের অংশীদার নেস ওয়াদিয়া সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, সবার আগে মানুষের জীবন, তারপর অন্য কিছু। তিনি আরও জানিয়েছেন যে এই মুহুর্তে সার্বিক পরিস্থিতির কোনও উন্নতি হয়নি, ফলে এই পরিস্থিতিতে বিসিসিআইয়ের পক্ষেও কোন পদক্ষেপ নেওয়া সম্ভব নয়। যদি পরিস্থিতি আরও খারাপের দিকে যায় এবং শেষপর্যন্ত যদি এইবারের আইপিএল আয়োজন না করা যায় তবে সেটাও মেনে নিতেই হবে বলে নেস জানিয়েছেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আর এক অন্য ফ্রাঞ্চাইজি কর্তাও নেস-এর বক্তব্য কে সমর্থন জানিয়েছেন। 

আরও পড়ুনঃকরোনা যুদ্ধে জয়, সুস্থ আর্সেনাল কোচ মাইকেল আর্তেতা

নেস পরে আরও বলেছেন যে যদি অলিম্পিকের মত বড় স্পোর্টিং ইভেন্ট পিছিয়ে যেতে পারে এক বছরের জন্য তবে আইপিএল কেন নয়! আইপিএল অলিম্পিকের তুলনায় অনেক ছোট বলেও তিনি উল্লেখ করেছেন। আপাতত সম্প্রচারক দের সাথে আলোচনা করা আর্থিক ক্ষতি কিভাবে সামাল দেওয়া যেতে পারে ত নিয়ে ভাবছে ফ্রাঞ্চাইজিগুলি।