২০০৯-এর পর ২০২১। এক যুগ পর ফের লেসলি ক্লডিয়াস সরণির ক্লাবে ফিরলেন জাতীয় দলের গোলরক্ষক সুব্রত পাল। বেশ কিছু দিন থেকেই জল্পনা চলছিল। অবশেষে তা সত্যি হল। আইএসএলের ট্রান্সফার উইন্ডোতে হায়দরাবাদ এফসি থেকে এসসি ইস্টবেঙ্গলে যোগ দিলেন 'সুপারম্য়ান' সুব্রত পাল। দেবজিৎ মজুমদারের পাশাপাশি লাল-হলুদের তেকাঠির তলাকে আরও শক্তিশালী করতেই নাটাগড়ে ছেলে দলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে লাল-হলুদ কর্তারা।

ইস্টবেঙ্গলে এর আগেও কেলেছেন সুব্রত পাল। লাল-হলুদ জার্সির ওজন ও দায়িত্ব সম্পর্কেও ওয়াকিবহাল তিনি। ফলে আরও একবার সই দায়িত্ব নিতে মুখিয়ে রয়েছেন ৩৪ বছর বয়সী গোলরক্ষক। এবছর হায়দরাবাদ এফসির হয়ে ৬টি ম্যাচ খেলেছেন। কিন্তু কেরালার কাছে ২-০ গোলে হারের পর আর দলে সুযোগ পাননি সুব্রত। তবে রবি ফাউলারের দলেও প্রথম একাদশে জায়গা পাওয়াটা খুব একটা সহজ হবে না। দেবজিৎ মজুমদার যেই ফর্মে রয়েছে তাতে তাকে বসিয়ে সুব্রতকে বসানোর সম্ভাবনা খুবই কম।

ট্রান্সফার উইন্ডোতে একদিকে যেমন হায়দরাবাদ এফসি থেকে ইস্টবেঙ্গলে এসেছেন সুব্রত পাল। তেমনই ইস্টবেঙ্গল থেকে লাল-হলুদ ব্রিগেড থেকে হায়দরাবাদের দলে যোগ দিয়েছেন গোলরক্ষক শংকর রায়। লিগ টেবিলে খুব একটা ভালো দায়গাতে এখনও পর্যন্ত নেই রবি ফাউলারের দল। তারউপর দেবজিতের মতো কঠিন প্রতিপক্ষের সঙ্গে লড়াই। সব চ্যালেঞ্জ নিয়েই এসসি ইস্টবেঙ্গলে নিজেকে আরও একবার প্রমাণ করার জন্য মুখিয়ে রয়েছেন সুব্রত পাল।