ক্লাবের শতবর্ষ উদযাপন। একইসঙ্গে নানা ঘাত-প্রতিঘাত পেরিয়ে দেশের সেরা ফুটবল লিগ আইএসএলে খেলার সুযোগ। শেণ মুহূর্তে তড়িঘড়ি স্পনসর ঠিক থেকে দল গড়া, হয়েছিল সবকিছুই। অনেক আশা ও স্বপ্ন নিয়ে আইএসএলের আঙিনায় পা রেখেছিল এসসি ইস্টবেঙ্গল। কিন্তু মরসুম জুড়ে অধরাই রয়ে গেল সাফল্য। সঙ্গী হল শুধুই হতাশা। এই পরিস্থিতিতে আজ আইএসএলের শেষ ম্যাচে মাঠে নামছে রবি ফাউলারের দল। প্রতিপক্ষ লিগ টেবিলের লাস্ট বয় ওড়িশা এফসি। শেষ ম্যাচ জিতে সম্মান রক্ষা করতে চায় লাল-হলুদ ব্রিগেড।

সম্মানরক্ষার ম্যাচ লাল-হলুদের-
বর্তমানে লিগ টেবিলে ১৯ ম্যাচে ১৭ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের নবম স্থানে রয়েছে এসসি ইস্টবেঙ্গল। শেষ ৫ ম্যাচে একটি জয় পেয়েছে লাল-হলুদ। শেষ ম্য়াচেও নর্থইস্টের বিরুদ্ধে ২-১ গোলে হারতে হয়ে ইস্টবেঙ্গলকে। শেষ চার ম্যাচ আবার নির্বাসনের কারণে মাঠের বাইরে ছিলেন রবি ফাউলার। নর্থইস্টের বিরুদ্ধে চোটের জন্য খেলতে পারেননি পিলকিংটন ও ব্রাইট। তবে আজকের ম্যাচে মাঠে ফিরছেন ফাউলার। তাই শেষে ম্যাচে যে পূর্ণ শক্তির দল নামাবে ইস্টবেঙ্গল তা জানিয়ে দিয়েছেন লাল-হলুদ কোচ। বলেছেন,আমরা প্রত্যেকেই পেশাদার। হতে পারে এই মরসুমে এটাই আমাদের শেষ ম্যাচ। কিন্তু অনেক কিছু দেওয়ার আছে। আমার বিশ্বাস, ফুটবলারেরা সেই মানসিকতা নিয়েই খেলবে। সেরা দলই নামাব। এই ম্যাচ থেকে আমাদের কিছু পাওয়ার নেই ঠিকই। যে কোনও মূল্যে এই ম্যাচটা জিততে চাই।' দলের প্লেয়াররাও নিজেদের সেরাটা উজার করে দিয়ে শেষ ম্যাচ জিতে মরসুম শেষ করতে চাইছে।

শেষ ম্য়াচে জয় চায় ওড়িশা-
অপরদিকে, ওড়িশা এফসি-রও গোটা মরসুম হতাশাজন গিয়েছে। ১৯ ম্যাচে ৯ পয়েন্ট লিগ টেবিলের একেবারে শেষে রয়েছে স্টিভন ডায়াসের দল। প্রথম লেগে এসসি ইস্টবেঙ্গলের বিরুদ্ধে ৩-১ গোলে হারতে হয়েছিল ওড়িশাকে। তাই এই ম্যাচ জিতে বদলা নেওয়ার পাশাপাশি জয় দিয়ে মরসুম শেষ করতে চাইছে ওড়িশা। স্টিফেন ডায়াস জানিয়েছেন,যে কোনও মূল্যে ম্যাচটা জিতে মরসুম শেষ করতে চাই আমরা। শেষ ম্য়াচে মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে ৬-১ গোলে লজ্জার হার হলেও, শেষ ম্য়াচে নিজেদের সেরাটা দিয়ে জয় চাইছে মাউরিসিও, এনু, বোদোরা। 

ম্যাচ প্রেডিকশন-
দুই দলেরই আজকের ম্য়াচ মরসুমের শেষ ম্যাচ। পাওয়ার কিছু না থাকলেও, জয় দিয়ে মরসুম শেষ করতে চাইছে দুই দলই। তবে দলগত শক্তির বিচারে ওড়িশার থেকে কিছুটা এগিয়ে ইস্টবেঙ্গল। তবে ফুটবল বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন আজকের ম্য়াচে যে দল প্রথম গোল করবে তাদেরই জয়ের সম্ভাবনা বেশি।