উত্তমা সরকার, জলপাইগুড়ি:  পাসের হারে নয়া রেকর্ড, করোনা আতঙ্কের মাঝেই বুধবার প্রকাশিত হল এবছরের মাধ্যমিক ফলাফল। মেধাতালিকায় যথারীতি জেলার পড়ুয়াদেরই জয়জয়কার। সম্ভাব্য অষ্টম স্থান অধিকার করেছে জলপাইগুড়ির বরুণাদিত্য সাহা। 

আরও পড়ুন: কেঁদে ফেলেছিলেন বাবাও, মায়ের কাছেই পড়াশোনা - কী জানালো মাধ্যমিকে প্রথম অরিত্র পাল

বাবা পেশায় শিক্ষক, মা গৃহবধূ। বরাবর মেধাবী ছাত্র বরুণাদিত্য। এবছর জলপাইগুড়ি জেলা স্কুল থেকে মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়েছিল সে। জীবনের প্রথম বড় পরীক্ষা বলে কথা! কোনও ফাঁক ছিল না প্রস্তুতিতে। বস্তত, ছেলে মাধ্যমিক ভালো ফল করবে, সে বিষয়ে প্রথম আশাবাদী ছিলেন পরিবারের লোকেরাও। কিন্তু তা বলে একেবারে মেধা তালিকায় জায়গা করে নেবে সে! তা ভাবতে পারেননি কেউ। বরুণাদিত্য়ে রেজাল্টে খুশি হাওয়া সাহা বাড়িতে।  মাধ্যমিকে কেমন ফল করেছে বরুণাদিত্য? সাতশোর মধ্যে ছয়শো পঁচাশি নম্বর পেয়ে এ রাজ্যে সম্ভাব্য অষ্টম স্থান অধিকার করেছে মেধাবী ছাত্র। ভবিষ্যতে বিজ্ঞান নিয়ে পড়তে চায় বরুণাদিত্য। 

আরও পড়ুন: ৮৪টি নামের মেধা তালিকায় নেই কেন কলকাতার একজনও, কী বলছে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ

উল্লেখ্য, এবারের মাধ্যমিকে পাসের হার সবচেয়ে বেশি পূর্ব মেদিনীপুরে। এই জেলায় পাস করেছেন  ৯৬ শতাংশ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী।  আর দ্বিতীয় স্থানে পশ্চিম মেদিনীপুর। এরপর রয়েছে যথাক্রমে কলকাতা ও দুই চব্বিশ পরগণা।  এবছর মাধ্যমিক পরীক্ষা শুরু হয়েছিল ১৮ ফ্রেরুয়ারি।  মূল পরীক্ষা শেষ হয় ২৭ ফ্রেরুয়ারি।  ১৩ মার্চ ছিল ওয়ার্ক ঐচ্ছিক পরীক্ষা ওয়ার্ক এডুকেশন।