গ্রামে কি বাঘ ঢুকেছে? বাছুরের মৃত্যুতে আতঙ্ক ছড়াল ঝাড়গ্রামে। খবর পেয়ে বুধবার সকালে স্থানীয় মানিকপাড়া এলাকায় যান বন দপ্তরের আধিকারিকরা। এলাকাটি ঘুরে দেখেন তাঁরা, কথা বলেন স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গেও।

কী ব্যাপার? মানিকপাড়া এলাকার রাধেশ্যামপুর গ্রামটি একেবারেই জঙ্গল লাগোয়া। গ্রামে অনেকেই গরু পোষেন। দিনভর এদিক-সেদিক ঘুরে বেড়ালেও, রাতে গবাদি পশুদের গোয়ালঘরে বেঁধে রাখেন স্থানীয় বাসিন্দারা। বুধবার সকালে দেখা যায়, গ্রামের কাছেই জঙ্গলে একটি বাছুরের ক্ষতবিক্ষত দেহ পড়ে রয়েছে। আতঙ্ক ছড়ায় এলাকায়। কিন্তু বাছুরটি মারা গেল কী করে? স্থানীয় বাসিন্দাদের আশঙ্কা, রাতে কোনও হিংস্র প্রাণীর আক্রমণে প্রাণ গিয়েছে গবাদি পশুটির। সেক্ষেত্রে গ্রামে বাঘ ঢুকে পড়ার সম্ভাবনাই বেশি। অন্তত তেমনটাই মনে করছেন গ্রামবাসীরা। 

আরও পড়ুন: হাতির পা ও শুড়ে গভীর ক্ষত, বনদপ্তরে খবর দিলেন গ্রামবাসীরাই

আরও পড়ুন: স্কুটি দেখলেই সঙ্গমের সাধ, 'কামদেব'-এর কাণ্ডে আতঙ্ক দুর্গাপুরে

কী বলছেন বনদপ্তরের আধিকারিকরা? রাধেশ্যামপুর গ্রাম লাগোয়া জঙ্গলে যে বাছুরের মৃতদেহ পাওয়া গিয়েছে, সেকথা স্বীকার করে নিয়েছেন ঝাড়গ্রামের ডিএফও বাসবরাজ হলেইচ্ছি। তাঁর বক্তব্য, ঝাড়গ্রামের বিভিন্ন জঙ্গলে নেকড়ে বা ইন্ডিয়ান উলফ দেখতে পাওয়া যায়। বাছুরটি সম্ভবত নেকড়ে-র আক্রমণেই মারা গিয়েছে। উল্লেখ্য, দিন কয়েক আগে ঝাড়গ্রামের বিনপুরে পায়ের ছাপ দেখে বাঘের উপস্থিতি কথা জানিয়েছিল বনদপ্তরই। তবে বাঘের দেখা মেলেনি।