কলকাতার জাদুঘরের পর এবার গার্ডেনরিচ শিপ বিল্ডার্স। ফের করোনায়  আক্রান্ত হয়ে মারা গেল সিআইএসএফ-এর এক অফিসার। সূত্রের খবর, করোনাতেই মারা গিয়েছেন ওই ব্যক্তি। যদিও এ বিষয়ে এখনও সরকারিভাবে কোনও তথ্য প্রকাশ করেনি রাজ্য় সরকার।

জানা গিয়েছে,শিপ বিল্ডার্সে অ্যাসিস্ট্যান্ট সাব ইন্সপেক্টর পদে নিযুক্ত ছিলেন ওই ব্যক্তি। সম্প্রতি এক সিআইএসএফ অফিসারের করোনা উপসর্গ দেখা দিলে,তাকেও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়৷ সোমবার মারা যান সেন্ট্রাল ইন্ডাট্রিয়াল ফোর্স-এর ওই অফিসার। ৫৫ বছরের ওই ব্যক্তি আসলে দক্ষিণ দিনাজপুরের বাসিন্দা ছিলেন। গত ৫ মে তার শরীরে করোনা ধরা পড়ে। কলকাতার ডিসান হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে।

এর আগে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় জাদুঘরে কর্তব্যরত সিআইএসএফ এক আধিকারিকের৷ তাঁর সংস্পর্শে আসা ৩৩ জন সিআইএসএফ জওয়ানকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়৷ গত শুক্রবার কলকাতা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে মৃত্যু হয় সিআইএসএফ এক আধিকারিকের৷ অ্যাসিস্ট্যান্ট সাব ইন্সপেক্টর পদমর্যাদার ওই জওয়ান ভারতীয় জাদুঘরে কর্মরত ছিলেন৷ তিনি আদতে পূর্ব বর্ধমানের কালনার বাসিন্দা৷ 

ইতিমধ্য়েই সিআইএসএফ আধিকারিকের মৃত্যুর জেরে ব্যারাকে থাকা ৩৩ জন সিআইএসএফ আধিকারিককে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে৷  জাদুঘর কর্তৃপক্ষ ই-মেল করে জাদুঘরে সমস্ত কর্মীকে কাজে আসতে নিষেধ করেছে। খবর প্রকাশ্য়ে আসতেই জাদুঘর ও সংলগ্ন ব্যারাকে জীবাণুমুক্ত করা হয়। তবে জানা গিয়েছে, এই জওয়ানদের মধ্যে সেই সময় করোনার কোনও উপসর্গ দেখা যায়নি৷ কিন্তু তাঁদের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়৷